আজ বুধবার, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ।   ১৭ এপ্রিল ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শহীদ শামসুন্নেছা আরজু মনি শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান 

-Advertisement-

আরো খবর

মামুন হাসান (স্টাফ রির্পোটার):
০৩ মে বুধবার সকাল ১০ ঘটিকায় হতে ঢাকা কলাবাগান থানার অর্ন্তগত মেহেরুন্নেসা গার্স স্কুল এন্ড কলেজের আইসিটি নতুন ভবন উদ্বোধন এবং শহীদ শামসুন্নেছা আরজু মনি শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র গণমানুষের নেতা ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন – ঢাকা ১০ আসনের মাননীয় সাংসদ সদস্য জনাব শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। আলহাজ্ব সাবির আহমেদ চৌধুরী- মরমী কবি এবং প্রতিষ্ঠাতা মেহেরুন্নেসা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ। প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন মজুমদার প্রধান প্রকৌশলী- শিক্ষা প্রকৌশলী ঢাকা। জনাব এ্যাডভোকেট কাজী মোর্শেদ হোসেন কামাল- ১নং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামীলীগ। জনাব সালাউদ্দিন আহমেদ ঢালী- সাধারণ সম্পাদক, থানা আওয়ামী লীগ। জনাবা নার্গিস মাহতাব- সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১৬, ১৭ ও ২১ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। জনাব  মোঃ সারওয়ার – সভাপতি ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ। জনাব আলতাব হোসেন – সাধারণ সম্পাদক ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ। উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন – কলাবাগান থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং ১৬ নং ওর্য়াড কাউন্সিলর এবং মেহেরুন্নেসা গার্স স্কুল এন্ড কলেজের গর্ভানিং বডির সভাপতি জনাব নজরুল ইসলাম বাবুল। এছাড়া ও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধানমন্ডি থানা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব নাসিরুল হাসান সজিব,  ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মাহে আলম, ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের  সাধারণ সম্পাদক রাঙ্গা বাবু, কলাবাগান থানা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সাবেক আহ্বায়ক কামরুল ইসলাম, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন, ১৬ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি সৈয়দ সায়মন, ও সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, কলাবাগান থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবদুর রহমান শিমুল, ১৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা আবদুর রহমান নিরব, মোহাম্মদ শাকিল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগ নেতা কাজী তানভীর, কলাবাগান থানা ছাত্রলীগের সভাপতি মো: জসিম উদ্দিন,  সাধারণ সম্পাদক রিসালাত হাসান প্রদ্বীপ সহ আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ,   যুবলীগের নেতৃবৃন্দ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ,  স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথি মাননীয় মেয়র শেখ তাপস  তাহার বক্তব্যে বলেন শিক্ষার মানকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। স্মার্ট বাংলাদেশের স্মার্ট শিক্ষার মান উন্নয়ন করতে হবে। তিনি বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনা এই কার্যক্রম শুরু করেছে উনি দায়িত্ব নেওয়ার আগে ও আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার আগে বেসরকারি বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় এবং মাদ্রাসা গুলোতে সরকারি কোন বিনিয়োগ হতো না। সরকার কোন ব্যয় করত না, কোন শিক্ষার মান উন্নয়ন করত না। মাননীয় মেয়র বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন শিক্ষা খাতে যত ব্যয় হবে এটা আমার বিনিয়োগ, আমার সন্তানের জন্য বিনিয়োগ,আমার ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য বিনিয়োগ। কোন সরকারি নয় বিদ্যালয়, মহাবিদ্যালয় এবং মাদ্রাসা ক্ষেত্রে জননেত্রী শেখ হাসিনা যতদিন সরকার প্রধান আছেন  ততদিন শিক্ষা খাতে বিনিয়োগ করে যাবেন।
সেটার আলোকে ঢাকা ১০ আসনে  নতুন উচ্চ বিদ্যালয়,  মহাবিদ্যালয়, বেসরকারি বিদ্যালয় এরকম বড় বড় ভবন নির্মাণ করেছি। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কে ছয়তালা ভবন নির্মাণ করে দিয়েছি। এ সকল কিছুর কৃতিত্ব হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মেহেরুন্নেসা গার্লস স্কুল এন্ড কলেজ ভবন নির্মাণ কাজ শুরু  হয়েছিলো ২০০৯ সালে। এ বিদ্যালয়টি স্বয়ং সম্পূর্ণ ছিলনা, এ বিদ্যালয়টিকে বিভিন্ন অনুদানের মাধ্যমে আস্তে আস্তে স্বয়ংসম্পূর্ণ করে গড়ে তুলতে সহযোগিতা করেছি। এ বিদ্যালয়ে আসতে কাঁদা মাটি থাকতো, সারা বছর জলাবদ্ধতার কারণে  বিদ্যালয়ের সড়কটি পানি লেগে থাকতো, সেই পানি সরানোর ব্যবস্থা করে সড়ক নির্মাণ করে দিয়েছি। জলাবদ্ধতা দূরীকরণের জন্য ড্রেনেজের  ব্যবস্থা করে দিয়েছি এবং নতুন একটি আইসিটি ভবন  করে দিয়েছি।
মাননীয় মেয়র আরো বলেন বিদ্যালয়টি মান বজায় রাখার জন্য শিক্ষকদের আহবান করেছেন এবং বিদ্যালয়টি সরকারি করণের জন্য আশ্বস্ত করেছেন। শিক্ষার মানকে উচ্চ শিখরে তুলে ধরতে হবে। তিনি আরো বলেন স্কুলের কোন মানদন্ড যদি ঠিক না থাকে তাহলে সরকারী  করন করা যাবে না। টানা ১০ বছর শতভাগ পাশের হাড় বাড়াতে হবে, শিক্ষকদের ঠিকমতো উপস্থিত থেকে আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে।
পরিশেষে মাননীয় মেয়র বলেন স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে স্মার্ট ভাবে শিক্ষার নাম  উন্নত করতে হবে। জননেত্রী শেখ হাসিনার স্মার্ট বাংলাদেশ গর্বে বর্তমান প্রজন্মের    শিক্ষার্থীরা।
মাননীয় মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস কবির ভাষায় তিনি বলেন,
‘আমি হব সকাল বেলার পাখি ‘ “আমরা যদি না জাগিমা কেমনে সকাল হবে “
‘তোমার ছেলে উঠলে পরে রাত পোহাবে সবে ‘
মাননীয় মেয়র বলেন, আমাদের বাংলাদেশের রাত পোহিয়ে গেছে। আমরা জেগে উঠেছি আমরা জেগে থাকবো জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং এগিয়ে যাবে। “জয় বাংলা জয় বঙ্গবন্ধু “
আলোকিত প্রতিদিন/০৩ মে -২০২৩/মওম
- Advertisement -
- Advertisement -