আজ বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ।   ২২ মে ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

কলাপাড়ায় বালুবাহী বাল্কহেডের ধাক্কায় সেতু ক্ষতিগ্রস্থ,দুর্ঘটনার আশংকা করছে এলাকাবাসী

-Advertisement-

আরো খবর

- Advertisement -
- Advertisement -

সংবাদদাতা,কলাপাড়া (পটুয়াখালী):  কলাপাড়ায় চাকামাইয়া-টিয়াখালী ইউনিয়নের সংযোগ নদীর উপর নির্মিত বাংলাদেশ-ডেনমার্ক মৈত্রী-সেতুর একটি পাইল এবং একটি পাইলের উপরের নীচের অংশ বালুবহনকারী বাল্কহেডের থাক্কায় কংক্রিটের ঢালাই ভেঙ্গে রড বের হয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ব্রিজটি, ফলে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশংকা এলাকাবাসীর। চৌরাস্তার বাজারের স্থানীয় এলাকাবাসীর সূত্রমতে জানা যায়,, শনিবার (২০ জুন) বালুবহনকারী ‘এমবি সিরাজ এন্টার প্রাইজ এসমাইল এন্ড আজমাইলের’ ধাক্কায় সেতুর এমন ক্ষতিসাধন হয়েছে। স্থানীয়রা এ নিয়ে সেতুটির ক্ষতির শঙ্কা প্রকাশ করছেন। বাল্কহেডের স্টাফরা জানায়, বালু খালাশ করে ফেরার পথে অসাবধানতাবশত সেতুর পাইল ও স্লাবের সঙ্গে ধাক্কা লেগে যায়। এবং বাল্কহেডটি সেতুর নিচে আটকে যায়। ব্যবসায়ী রিয়াজ তালুকদার জানান, বালু বোঝাই এসব বাল্কহেড চলাচলের সময়  সেতুতে ধাক্কা লাগে। পাইল এবং পাইলের উপরের স্লাবের নিচের পাথরের ঢালাই ভেঙ্গে  রড বের হয়ে গেছে (যার ওপরে গার্ডার সেট করা হয়েছে)। টিয়াখালী-নিশানবাড়িয়া-চাকামইয়া দোন নদীর ওপর নির্মিত এ সেতুর এমন ক্ষতিতে মানুষ ব্যাপক উদ্বেগ ও আশংকা প্রকাশ করেছেন। কলাপাড়া পৌরশহর থেকে চাকামইয়া-তালতলী-তারিকাটাসহ কয়েকটি ইউনিয়নের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য সেতুটি ২০১০ সালের ৭ জুলাই উদ্বোধন করা হয়। ডেনমার্কের রাষ্ট্রদূত মিঃ এইনার হেবোগার্ড জেনসন সেতুটির উদ্বোধন করেন। ফলে হাজার হাজার মানুষ যানবাহন চলাচলে এক নতুন দিগন্তের সূচনা ঘটে। ডেনমার্ক সরকারের অর্থায়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর সেতুটি নির্মাণ করে। কলাপাড়া এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মহর আলী জানান, বাল্কহেডটি আটকে দেয়া হয়েছে এবং ক্ষয়ক্ষতি যাচাই-বাছাই করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক জানান, খবরটি শোনার পরেই স্থানীয় চেয়ারম্যান এবং এলজিডির প্রকৌশলীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

 

আলোকিত প্রতিদিন/২১ জুন’২০/এসএএইচ

- Advertisement -
- Advertisement -