8:27 am |আজ সোমবার, ৯ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২৩শে মে ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরি




টাঙ্গাইলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩

টাঙ্গাইলে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩




প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল:

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক স্কুলছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগে ফারুক ও তার সহযোগী বিশাল এবং সোহেল প্রধানকে গ্রেপ্তার করেছে ভূঞাপুর থানা পুলিশ। ৮ মে রবিবার ভোরে সিরাজগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। জানা যায়, গত ৫ মে  বৃহস্পতিবার সকালে দাদার বাড়ি যাওয়ার পথে ঐ ছাত্রীকে অপহরণের পর একাধিকবার ধর্ষণ করে ফারুক। এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে ৭ মে শনিবার সকালে ভূঞাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ফারুক ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত ফারুক ভূঞাপুর উপজেলার বানিয়াবাড়ি গ্রামের নাজমুল প্রধানের ছেলে একই গ্রামের সোহেল প্রধান মৃত রহিজ প্রধানের ছেলে এবং মো. বিশাল সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার হোসেনপুর উত্তরপাড়া গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে। ছাত্রীর পরিবার ও মামলা সূত্রে জানা যায়, মেয়েটি স্কুলে যাওয়া- আাসার পথে বখাটে ফারুক বিভিন্ন সময়ে প্রেমের প্রস্তাব দিত এবং নানাভাবে তাকে উত্যক্ত করত। মেয়েটি প্রতিবাদ করলে তুলে নেয়ার হুমকিও দিত ফারুক। গত ৫ মে বৃহস্পতিবার ঈদের তৃতীয় দিন সকালে ঐ ছাত্রী একা তার দাদার বাড়ি যাচ্ছিল। এসময় তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয় অভিযুক্ত ফারুক। প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ফারুক তার দলবল নিয়ে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যায় মেয়েটিকে। এরপর নৌকাযোগে প্রথমে সিরাজগঞ্জের তার এক বন্ধুর বাসায় নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করে ফারুক। তারপর সেখান থেকে ফারুক তার খালার বাসায় নিয়ে ফের ধর্ষণের পর শারীরিকভাবে নির্যাতন করে বিয়ের চাপ সৃষ্টি করে। তবু সে বিয়েতে রাজি না হওয়ায় তার এক সহযোগী অপহরণকারীর বাড়িতে সন্ধ্যার দিকে স্কুলছাত্রীকে নিয়ে আসে ফারুক ও তার অন্যান্য সহযোগীরা। এরপর এ বিষয়টি মেয়েটির বাবা জানতে পেরে ওইদিন রাতেই ফারুকের বন্ধুর বাড়ি থেকে আত্মীয়-স্বজন এবং স্থানীয় মাতব্বরদের সঙ্গে নিয়ে মেয়েকে উদ্ধার করেন। পরে শনিবার সকালে মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে ফারুককে প্রধান আসামি করে মামলা দায়ের করেন। পরে এসআই ফাহিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সিরাজগঞ্জ থেকে প্রধান অভিযুক্ত ফারুক ও তার সহযোগী বিশালকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। পরে আরেক সহযোগী সোহেল প্রধানকেও গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ ব্যাপারে ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম আলোকিত প্রতিদিনকে বলেন, অভিযুক্ত প্রধান আসামি ফারুক ও তার সহযোগী বিশাল এবং সোহেল প্রধানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

আলোকিত প্রতিদিন/ ০৮ মে ,২০২২/ মওম

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন











All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান