4:04 am |আজ মঙ্গলবার, ১৯শে শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৩রা আগস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে জিলহজ ১৪৪২ হিজরি

সংবাদ শিরোনাম:
হাতি দুটি অবশেষে টেকনাফের বনাঞ্চলের পথে

হাতি দুটি অবশেষে টেকনাফের বনাঞ্চলের পথে

টেকনাফ প্রতিনিধি: মিয়ানমার থেকে নাফ নদী সাঁতরে  টেকনাফে আসেন আরও দুটি হাতি। নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগরে পানিতে টানা তিনদিন অবস্থান করার পর অবশেষে উদ্ধার করে টেকনাফের বনাঞ্চলের পথে নেওয়া হচ্ছে। গত মঙ্গলবার ২৯ জুন বেলা ২টা পর্যন্ত শাহপরীর দ্বীপ ঘোলারচর এলাকায় পানিতে অবস্থান করছিল। শাহপরীর দ্বীপ পশ্চিমপাড়া সমুদ্রের পানি থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে বড় হাতিটিকে উদ্ধার করে সৈকত এলাকা দিয়ে টেকনাফের বনাঞ্চলের নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এর আগে সকাল দশটার দিকে ছোট হাতিটি পানি থেকে উঠে এসে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। পরে উদ্ধারকর্মীরা সেটিকে টেকনাফে নিয়ে যাচ্ছিলেন। তথ্যটি  নিশ্চিত করেছেন উদ্ধারকারী দলের প্রধান টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল মনসুর। তিনি বলেন, হাতি দুটিকে উদ্ধার করার জন্য পুলিশ, বিজিবি, কোস্টগার্ড, বনবিভাগ ও উপজেলা প্রশাসন একযোগে কাজ করছে। পাশাপাশি স্থানীয় জেলেদের সহায়তায় বড় হাতিটিকে সমুদ্র থেকে উদ্ধার করার পাশাপাশি গলায় রশি বেঁধে সৈকত এলাকা দিয়ে টেকনাফের বনাঞ্চলের দিকে নেওয়া চেষ্টা করা হচ্ছে। এর মধ্যে বড় হাতি দুর্বল হয়ে পড়ায় খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয়েছে।
 টেকনাফ রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক আহমেদ বলেন, গত রোববার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের নয়াপাড়া পরিবেশ টাওয়ারের পূর্ব পাশে নাফ নদী প্যারাবন এলাকায় হাতি দুইটি দেখতে পায়  স্থানীয় লোকজন।  রোববার বিকেলে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপ জেটিঘাট সংলগ্ন বিজিবি সীমান্ত ফাঁড়ির সামনে নাফ নদীতে হাতি দুটি আশ্রয় নেয়। সারারাত হাতি দুটি পানিতে ছিল। সোমবার সকালের দিকে হাতি দুটি সাঁতরে সেন্টমার্টিনের দিকে যেতে চাইলে  কোস্টগার্ড সদস্যদের সহযোগিতায় ৪-৫টি ট্রলারে মাধ্যমে একই স্থানে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। হাতি দুটিকে কলাগাছসহ বিভিন্ন ধরনের লতাপাতা খেতে দেওয়া হয়েছে। হাতি দুটিকে পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরের এলাকা দিয়ে টেকনাফে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।
এরআগে শনিবার টেকনাফের জালিয়াপাড়া এলাকা থেকে ৩০থেকে ৪০বছর বয়স্ক আরও দুইটি মা হাতি উদ্ধার করে টেকনাফের বনাঞ্চলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। গত ২০২০ সালের ৪ আগস্ট মিয়ানমার থেকে সাঁতরে একটি মা হাতি এসেছিল সেটি টেকনাফের বনাঞ্চলে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল। শনিবার বিকালে মিয়ানমার থেকে সাঁতরে এসে দুইটি বড় আকারের হাতি এপারে প্যারাবনে আশ্রয় নেয়। পরে স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে বনবিভাগের একদল কর্মী ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এ সময় হাতিগুলোকে প্যারাবনে ছোটাছুটি করতে দেখা যায়। “হাতি দুটির বয়স ৪০ বছরের বেশি হতে পারে। এগুলোর উচ্চতা ৭ থেকে ৯ ফুট। “রেঞ্জ কর্মকর্তা আরও বলেন, “প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে পাহাড়ি ঢলের পাশাপাশি দলছুট হয়ে সাঁতরে নাফ নদীর পেরিয়ে  আসতে পারে। হাতি দুইটিকে উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী ( ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী বলেন, গত তিনদিন পর হাতি দুটিকে নাফ নদী ও বঙ্গোপসাগরের পানি থেকে উঠিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা এ হাতি দুটিকে নিরাপদে টেকনাফের বনাঞ্চলে নিয়ে যেতে চেষ্টা চালাচ্ছেন।
আলোকিত প্রতিদিন/ ৩০ জুন, ২০২১/ এম এইচ সি

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান