2:38 am |আজ মঙ্গলবার, ১৯শে শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ৩রা আগস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে জিলহজ ১৪৪২ হিজরি

সংবাদ শিরোনাম:
সিরাজদিখানে দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা এখন মরণ ফাঁদ 

সিরাজদিখানে দেড় কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা এখন মরণ ফাঁদ 

আহসানুল ইসলাম আমিন, মুন্সীগঞ্জ :
মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান দেড় কিলোমিটার রাস্তার কাঁচায় ৬ গ্রামের কয়েক হাজার মানুষের ভোগান্তির শেষ নেই। উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের চৌদ্দঘর গ্রামের চৌদ্দঘর মসজিদ হতে চর ফুরশাইল খেয়া ঘাট পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার কাঁচা মাটির রাস্তা। উন্নয়ন না হওয়ায় ওই এলাকার প্রায় ৬টি গ্রামের কৃষক ও সাধারণ মানুষ বছরের পর বছর ধরে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের চরবয়রাগাদী থেকে তালতলা বাজার ও বালুচর বাজারে যাওয়ার একমাত্র গ্রামীণ রাস্তাটির উপর বর্তমানে বড় বড় গর্ত ও কাদাপানির নর্দমায় পরিনত হয়েছে। ভাড়ি বর্ষনের ফলে রাস্তায় খানাখন্দকের সৃষ্টি হয়েছে। চরবয়রাগাদী ৯নং ওয়ার্ডের চৌদ্দঘর মসজিদ থেকে চর ফুরশাইল মসজিদ হয়ে তালতলা বাজারে আসার খেয়া ঘাট পযন্ত প্রায়াই দেড় কিঃ মিঃ রাস্তাটি জনচলাচল একেবারেই অনপোযোগী হয়ে পড়েছে। বৃষ্টিতে রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে পড়ায় ঐ এলাকার কোন লোকজনই এ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে পারছে না। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার মানুষ যাতায়াতে করে। তালতলা বাজারে খেয়ে ঘাট পার হয়ে অটোরিক্সায় বালুচর হয়ে মোল্লা বাজার দিয়ে হাজারো মানুষ ঢাকায় যাতায়াতে করে প্রতিদিন।  সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, তালতলা বাজারে পূর্ব পাশের ইছামতী নদীর খেয়া ঘাট থেকে চৌদ্দঘর মসজিদ পযন্ত প্রায় দেড় কিঃ মিঃ রাস্তাটি মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। উল্লেখিত রাস্তাটি দিয়ে এলাকার কৃষক সাধারণ ,ভ্যান, পাওয়ার টিলার ও ট্রাক্টর দিয়ে চরবয়রাগাদী মাঠ ও আশেপাশের মাঠ থেকে তাদের জমির ফসল ঘরে তোলার কাজ করে থাকে। বিশেষ করে চলতি মৌসুমে ঘন ঘন বৃষ্টিপাত হওয়ায় রাস্তার উপর গর্তে পানি জমে গেলে সেখানে কাদা ও নর্দমা তৈরী হয়েছে। রাস্তার এমন বেহাল অবস্থা হওয়ায় কেউ চলাচল করতে পারছে না। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার না হওয়ায় চলাচলে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন এলাকার জনসাধারণ। প্রতিদিন এ রাস্তা দিয়ে প্রায় ১০ হাজার লোক যাতায়াত করে। মক্তব, মাদ্রাসা ও স্কুল পড়ুয়া কমল মতি শিশু সহ শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে যেতে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। এলাকায় বিয়ে সাধিতে আমন্ত্রীত অতিথিদের আসতে সীমাহীন কষ্ট আদিম যুগকেও হার মানায়। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান , এ রাস্তা দিয়ে চলাচলের আমাদের একেবারেই সম্ভব হচ্ছে না । স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ বাদশা মিয়ার কাছে অনেক বার বলেও কোনো কাজ হয়নি এলাকাবাসীর অভিযোগ। এ ব্যাপারে বালুচর ইউপি সদস্য মোঃ বাদশা মিয়ার কাছে জানতে চাওয়ার জন্য ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। বালুচর ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর দিদ্দিক বলেন, রাস্তাটি এলজিডির আমাদের পরিষদের না। তার পরেও এলাকার লোকের সমস্যার কথা চিন্তা করে যতটুক পেরেছি কাজ করেছি। এলাকার ভুক্তভোগী কৃষক সাধারণ ওই রাস্তাটি পাকাকরণের জন্য সরকারের নিকট জোর দাবি জানিয়ে আসছে।

আলোকিত প্রতিদিন/ ১৯ জুন, ২০২১/দ ম দ

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান