1:37 pm |আজ রবিবার, ১৭ই শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১লা আগস্ট ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২১শে জিলহজ ১৪৪২ হিজরি

সংবাদ শিরোনাম:
এলো শোকের মাস আগস্ট অসহায় মানুষের পাশে মানিকগঞ্জ জেলা পুুলিশ সুপার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শোকদিবসে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান আয়োজনের নির্দেশ কিশোরগঞ্জে গৃহহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার তুলে দেন এম পি সৈয়দ জাকিয়া নুর লিপি টাঙ্গাইলে ছেলের হাতে বাবা খুন আটপাড়ায় আশ্রয়ন প্রকল্পের উপকার ভোগীদের সাথে মতবিনিময় সভা চাকরি বাঁচানোর তাগিদে কর্মস্থলে ফিরতে শুরু করেছে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ শরীয়তপুরের জাজিরায় ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে রাতভর ভাঙচুর টানা বৃষ্টিতে সাতক্ষীরার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত: ভেসে গেছে মাছের ঘের ও ফসলি জমি আটপাড়ায় আশ্রয়ন প্রকল্পের উপকারভোগীদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত 
দীর্ঘমেয়াদি মজুদ কৃষি পণ্য পাহাড়ের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা হতে পারে : কৃষিমন্ত্রী

দীর্ঘমেয়াদি মজুদ কৃষি পণ্য পাহাড়ের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা হতে পারে : কৃষিমন্ত্রী

প্রতিনিধি, বান্দরবান:
খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ বাংলাদেশ বির্নিমাণ লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার কৃষিকে সামনে নিয়ে জাতীয় ভাবে বাণিজ্যিককরণ ও লাভজনক পণ্য নিয়ে আসতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক (এমপি)। কৃষি প্রান্তীক চাষীদের লাভজনক করতে হলে কাজুবাদাম, কফি,গোলমরিচসহ দীর্ঘমেয়াদি মজুদ রাখা যায় এমন অর্থকরী পণ্য ফসল চাষ করার আগ্রহী হতে হবে। তবে রুমা স্থানীয় কৃষকদের সাথে আলাপ প্রাক্কালে জানা গেছে, তারা এই পণ্য গুলো দীর্ঘদিন লাভবান আশায় বুক বেঁধে চাষ করে আসছে । কিন্তু যে পরিমাণে পরিশ্রম করে ফসলাদি উৎপাদন করে থাকেন সেই পরিমাণের ন্যায্য বাজার দাম থেকেই বঞ্চিত হচ্ছে তারাই ! তাতে এক শ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ীরা লাভবান হয়ে আসছে ! অনেকেই সরকারি সফরে কাজুবাদাম ও কফি চাষসহ বাজারজাত করনের ভিয়েতনাম সহ অন্যান্য দেশের গিয়ে একদিকে যেমন উৎসাহিত অনুপ্রেরণা যোগায় তেমনি হতাশই ! দেশের বাইরে কৃষি পণ্য বাজার জাত করণের যেমনি সহজলভ্য তেমনি ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করে সরকার কর্তৃক চাষীদের থেকে সরাসরি সংগ্রহ করে থাকে । তাই স্থানীয় চাষীদের হতাশাগ্রস্থ থেকে ফেরাতে/ উক্তরণের এমন উদ্যোগ নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কাজুবাদাম ও কফি চাষীরা। পাহাড়ী অঞ্চল জুড়ে যেসব ফসল চাষের আপামর সম্ভাবনা রয়েছে আনারস, আম,ড্রাগন,কমলা ও মাল্টা সহ প্রজাতির । এটি পণ্য চাষ করতে পারলে অদূর ভবিষ্যতে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকারই অর্থনীতিতে বিপ্লব ঘটবেই । পাহাড়ি প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর এলাকার মানুষের জীবনযাত্রার মানের দর্শনীয় এক দৃষ্টান্ত স্থাপন হতে পারে । একইসাথে দেশের জনসাধারণের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে মাটিতেও রপ্তানি করে প্রচুর বৈদেশিক মুদ্রা আয় সহ দেশ মুখ উজ্জ্বল হবে । শনিবার (১৯জুন) রুমায় কাজুবাদাম ,কফি ও আমসহ অন্যান্য ফলজলাদি বাগান পরিদর্শনের শেষে কৃষিমন্ত্রী চাষীদের লাভজনক কথা গুলো তুলে ধরেন। কৃষিমন্ত্রী বলেন, কাজুবাদাম ও কফি গবেষণা, উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ ‘শীর্ষক ২১১কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। মন্ত্রী সফর সঙ্গী হিসেবে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ মেসবাহুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব ওশাহিদা আক্তার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ, বিএডিসির চেয়ারম্যান ড. অমিতাভ সরকার, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং, (এমপি) , আরো বান্দরবানে জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি,পুলিশ সুপার জেরিন আখতার, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বান্দরবানে উপপরিচালক একেএম নাজমুল হক প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন । পরে সফর সিডিওল অনুযায়ী বিভিন্ন ফসলাদি বাগান পরিদর্শনে রুমা উপজেলার সংলগ্নের থানছি উপজেলায় রওনা দেন কৃষি মন্ত্রী ।

আলোকিত প্রতিদিন/ ১৯ জুন, ২০২১/দ ম দ

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান