6:12 am |আজ মঙ্গলবার, ১২ই মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২৬শে জানুয়ারি ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সংবাদ শিরোনাম:
চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরিবেশ সুষ্ঠু রয়েছে : সিইসি আলফাডাঙ্গায় ছিনতাই হওয়া বিকাশের ৩ লক্ষ টাকা উদ্ধার করেছে পুলিশ প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘর পেলো সাভারে ৪১টি পরিবার ঠাকুরগাঁওয়ে কৃষকদের প্রিয় হয়ে উঠেছে জৈবসার মাদারীপুরে শিক্ষকদের টাইমস্কেলসহ সুযোগ-সুবিধা বহাল রাখার দাবিতে মানববন্ধন ফরিদপুরে হতদরিদ্র পাঁচশ পরিবারের মাঝে এফডিএ’র লেপ বিতরণ দিনাজপুর গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক সড়ক নির্মাণ কাজের অগ্রগতি প্রশংসনীয় বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় বাঁধা, পোস্টার ও মাইক ভাঙচুরের অভিযোগ আ.লীগ মেয়র প্রার্থীর সমর্থনে বন্দর সিবিএ আয়োজিত সমাবেশ কুড়িগ্রাম পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্ব গ্রহণ
কক্সবাজারে বনবিভাগের উদ্যোগে মানুষ-হাতি সংঘাত নিরসন ও বন্য প্রাণী সংরক্ষণে করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

কক্সবাজারে বনবিভাগের উদ্যোগে মানুষ-হাতি সংঘাত নিরসন ও বন্য প্রাণী সংরক্ষণে করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

কক্সবাজার প্রতিনিধিঃ কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের আওতাধীন রামু উপজেলার ধোয়াপালং রেঞ্জের আয়োজনে খুনিয়াপালং বিটের গাইনপাড়ায়  কক্সবাজার  দক্ষিণ বনবিভাগের  সহযোগিতায় ১০ জানুয়ারী ( রোববার) সকাল ১০টায়  “মানুষ  – হাতি সংঘাত” করণীয়   শীর্ষক জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।জনসচেতনতামূলক  আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি  ছিলেন কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের (ডিএফও) মোহাঃ হুমায়ুন কবীর। ধোয়াপালং রেঞ্জ কর্মকর্তা মোহাঃ সাজ্জাদ হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায়  বিশেষ  অতিথি  ছিলেন বন্যপ্রাণী ও জীব বৈচিত্র্য কর্মকর্তা ইসরাত ফাতেমা। সভায় রামুর খুনিয়াপালং চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ,পানেরছড়া রেঞ্জ কর্মকর্তা তৌহিদুর রহমান টগর সহ স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ বনবিভাগের ফরেস্টারসহ  ভিলেজারগন উপস্থিত ছিলেন।জনসচেতনতামূলক  সভায় বক্তারা মানুষ  হাতি সংঘাত নিরসন এবং বন্য প্রাণী  সংরক্ষণে  এলাকাবাসী কে এগিয়ে  আসার  আহ্বান করেন।জনসচেতনতামূলক সভায় খুনিয়াপালং চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ   বক্তব্য  প্রদান করেন।প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কক্সবাজার  দক্ষিণ   বনবিভাগের  বিভাগীয় বন  কর্মকর্তা  মোহাঃ হুমায়ুন কবীর  বলেন,  বন্যপ্রাণী  ও বন্যহাতি সংরক্ষণ  আমাদের  নৈতিক দায়িত্ব । নির্বিচারে বন্য প্রাণী  হত্যা, ধরা এবং শিকার করা যাবে না । বন্য হাতিদের  আঘাত করে   নিধন  করলে প্রকৃতির ভারসাম্যে বিরাট প্রভাব  ফেলবে। তিনি আরো বলেন,  সামাজিকভাবে  সচেতন হয়ে আমাদের  মানুষ  ও হাতি সংঘাত নিরসন করে বন্য প্রাণী ও হাতিদের বাঁচাতে এগিয়ে  এসে বন সম্পদ রক্ষার্থে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। বন্যহাতি লোকালয়ে চলে আসলে তিনি বন বিভাগকে অবগত করার অনুরোধ  জানান,  তবুও যেন হাতিকে আক্রমণ  করা না হয়। বন্য হাতি, বন্যপ্রাণী ,  বনজদ্রব্য, বনভূমি রক্ষার্থে বন বিভাগ সজাগ  রয়েছেন। মানুষ  ও হাতির সংঘাত  নিরসন এবং বনজসম্পদ, বন্যপ্রাণী রক্ষা   এবং বনভূমি জবরদখলের বিরুদ্ধে  অভিযান  পরিচালনা  করে  আইনানুগ ব্যবস্থা  গ্রহণ  করা  হবে।  সঠিক তথ্য দিয়ে  সহযোগিতা  করার অনুরোধ জানান  তিনি। বিশেষ অতিথির  বক্তব্যে বন্যপ্রাণী ও জীব বৈচিত্র কর্মকর্তা ইসরাত জাহান   বলেন,  বন বিভাগ বন্যহাতি সংরক্ষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা  পালন  করছে।  সরকারি বনভূমি জবরদখলমুক্ত,  বন্যপ্রাণী, ও বন্যহাতিদের সংরক্ষণ   এবং বনজসম্পদ রক্ষায় সার্বিক সহযোগিতা  প্রদান করা হবে।জীব বৈচিত্র রক্ষার্থে যথাযথ সহযোগিতা প্রদান করা হবে।
আলোকিত প্রতিদিন/১১ জানুয়ারি’২১/এম.জে

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান