8:24 pm |আজ বৃহস্পতিবার, ৭ই মাঘ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২১শে জানুয়ারি ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সংবাদ শিরোনাম:
আমি মরি নাই, বেঁচে আছি স্যার

আমি মরি নাই, বেঁচে আছি স্যার

গাইবান্ধা প্রতিনিধি : তরতাজা একজন মানুষ পায়ে হেঁটে নির্বাচন কার্যালয়ে গিয়ে জানতে পারলেন তিনি বেঁচে নেই। নিজ কানে নিজের মৃত্যুর সংবাদ শুনে হতভম্ব গাইবান্ধা সদরের বল্লমঝাড় ইউনিয়নের নারায়নপুর গ্রামের ব্যবসায়ী বাবুল চন্দ্র বর্মণ। জাতীয় পরিচয়পত্রে একজন জীবিত মানুষকে মৃত দেখানোর পর অভিযোগ করেও জাতীয় পরিচয়পত্রে তাকে জীবিত করার উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

পরিচয়পত্রে এমন ভুলের কারণে ব্যাংক ঋণ এমনকি ভিসা করতে না পারায় বাবুল চন্দ্র বর্মণের চিকিৎসা পর্যন্ত আটকে আছে। বাবুল চন্দ্র বর্মণের অভিযোগ, সম্প্রতি ব্যবসায়িক প্রয়োজনে ব্যাংকে ঋণ নিতে গিয়ে তিনি জানতে পারেন তার জাতীয় পরিচয়পত্রে ত্রুটি আছে। যার কারণে তাকে ঋণ দেওয়া সম্ভব নয়।

এরপর পরিচয়পত্র নিয়ে বাবুল ছুটে যান গাইবান্ধা জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে। সেখানে সার্ভারে সার্চ করার পর সংশ্লিষ্ট জানান, পরিচয়পত্রে স্ট্যাটাস অপশনে তিনি মৃত। নিজের কানে নিজের মৃত্যুর সংবাদ শুনে সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ করে প্রতিকার চান বাবুল। এরপর সপ্তাহ পার হলেও জাতীয় পরিচয়পত্রে এখনও তিনি মৃত। বাবুলের অভিযোগ, গত ১৪ ডিসেম্বর সোমবার সকালে সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফের কাছে গেলে সময় লাগবে জানিয়ে তিনি দুর্ব্যবহার করে বাবুলকে তাড়িয়ে দেন। জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল মোত্তালিবের কাছে গিয়ে বাবুল আক্ষেপ করে বলেন, আমি বেঁচে আছি স্যার মরি নাই।

এ ব্যাপারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে, তিনি জাতীয় পরিচয়পত্রে ত্রুটির ব্যাপারে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আশ্বাস দিয়ে বলেন, কেন এই ত্রুটি হয়েছে তা খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আলোকিত প্রতিদিন/১৫ ডিসেম্বর ২০২০/জেডএন

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান