সাভারের আশুলিয়ায় গ্যাস বিস্ফোরণে একই পরিবারের তিনজন নিহত 

-Advertisement-

আরো খবর

- Advertisement -
- Advertisement -

প্রতিনিধি,সাভার: আশুলিয়ায় অবৈধ গ্যাস লাইন লিকেজে অগ্নিদগ্ধ হয়ে একই পরিবারের স্বামী-স্ত্রী ও ছয় বছরের শিশু সন্তানের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। ঘটনার পর থেকেই বাড়ির মালিক পলাতক রয়েছে। বুধবার (৮ জুলাই) দুপুরে ওই তিন ব্যক্তির মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছে নিহতের মামা আব্দুল আজিজ। নিহতরা হলেন-ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল থানার চন্দ্রপাশা এলাকার বাসিন্দা আবুল কাশেম (২৮)। তিনি আশুলিয়ায় কন্টিনেন্টাল নামক একটি পোশাক কারখানায় আয়রন ম্যান হিসেবে কাজ করতেন। তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম (২২) তিনি আশুলিয়ায় সাউদান নামক পোশাক কারখানায় অপারেট পদে চাকুরি করতেন। সেই সাথে ৬ বছরের শিশু সন্তান আল-আমীনের মৃত্যু হয়েছে । তারা আশুলিয়ায় দূর্গাপুর চালা গ্রামের শহীদ হাজীর মালিকাধীন বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করেতন। নিহতের মামা আব্দুল আজিজ জানান, প্রতি দিনের ন্যায় শনিবার (৪ জুলাই ) সকালে কারখানায় যাওয়ার আগে রান্না করতে যান ভাগ্নে বৌ ফাতেমা । কিন্তু দিয়াশলাইট দিয়ে গ্যাসের চুলা ধরানো মাত্রই লিকেজ থেকে আগুন ধরে যায়। সেই সময় ঘরে থাকা ভাগ্নে ও ভাগ্নে বৌ এবং তাদের সন্তান অগ্নিদগ্ধ হয়। পরে স্থানীয়রা দগ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে। পরে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৯ টার দিকে শিশু সন্তান আল-আমীনের মৃত্যু হয়। পরেরদিন রবিবার (৫ জুলাই)  ভাগ্নে ও ভাগ্নে বৌ’র চিকিৎসার ব্যয় বহন করতে না পারায় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ায় পথে ভাগ্নে আবুল কাশেমের মৃত্যু হয়েছে । এরপর ময়মনসিংহ ও শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয় ভাগ্নে বৌ ফাতেমাকে । সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় মঙ্গলবার (৭ জুলাই ) বিকেলে মৃত্যু হয় ফাতেমার। এবিষয়ে আশুয়িলা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সামিউল জানান, খবর পেয়ে বুধবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তবে ঘটনায় পর থেকেই বাড়ির মালিক পলাতক রয়েছে। এঘটনায় তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

 

আলোকিত প্রতিদিন/৮ জুলাই’২০/এসএএইচ

 

- Advertisement -
- Advertisement -