আজ রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ।   ১৬ জুন ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

গাইবান্ধায় বাড়ছে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা

-Advertisement-

আরো খবর

- Advertisement -
- Advertisement -

সংবাদদাতা,গাইবান্ধা :  গাইবান্ধায় বাড়ছে করোনা (কভিড -১৯) ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। শুধু গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে জেলায় করোনায় শনাক্ত হয়েছে ২৯ জন।জেলায় গত ২২ মার্চ প্রথম ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হওয়ার মধ্যে দিয়ে শুরু হয় সংক্রমণ। সেই থেকে ২১ মে পর্যন্ত ৫৫ দিনে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা ছিল ২৬ জন। এরপর ২২ মে থেকে ৩০ মে পর্যন্ত শুধুমাত্র ৮ দিনে এই করোনা ভাইরাসে সংক্রামিত হয়েছে ২৯ জন। গত শুক্রবার ( ২২মে) একদিনে নতুন করে ৩ জনের দেহে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। তাদের মধ্যে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ ও গোবিন্দগঞ্জে ২ জন মৃত ব্যক্তির দেহ থেকে সংগৃহিত নমুনা পরীক্ষার পর করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। বাকী ১ জন গোবিন্দগঞ্জের বাসিন্দা।
ঠিক একদিন পর শনিবার (২৩ মে) একদিনে ৪ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ২, গোবিন্দগঞ্জে ১ এবং বাকী ১ জন সাদুল্লাপুরের বাসিন্দা।
মাঝে তিনদিন কেউ করোনায় ( কেভিড-১৯) আক্রান্ত হননি। কিন্তু পরের ৩ দিনেই আক্রান্ত হন ২২ জন। গত বুধবার (২৭ মে) জেলায় আরও ৪ জন করোনা শনাক্ত হন। তাদের মধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ১ এবং বাকী ৩ সাদুল্লাপুরের বাসিন্দা।
শুক্রবার (২৯মে) জেলায় একদিনে ৭ জন করোনা পরীক্ষার ফলাফলে পজিটিভ হন। তাদের মধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় ১ জন এবং বাকী ৬ জন গোবিন্দগঞ্জের বাসিন্দা। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়ায় ৪৪ জন।
শনিবার (৩০ মে) জেলায় নতুন করে আরও ১১ জন করোনা আক্রান্তের মধ্যে দিয়ে নতুন সর্বোচ্চের রেকর্ড হয়েছে। নতুন করে আক্রান্ত ১১জনের মধ্যে গাইবান্ধা সদরে ২ , পলাশবাড়ীতে ১ এবং গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় শনাক্ত হয়েছে ৮ জন। শনিবার (৩০ মে) পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫৫ জনে। ৩০ মে শনিবার এই তথ্য নিশ্চিত করেন গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এবিএম আবু হানিফ।

গাইবান্ধা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনায় সংক্রান্ত কন্ট্রোল রুম থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, নতুন আক্রান্ত ১১ জনের মধ্যে ২জন গাইবান্ধা সদর উপজেলার বাসিন্দা, ১জন পলাশবাড়ী উপজেলার বাসিন্দা এবং ৮ জন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা।
এ নিয়ে গাইবান্ধা জেলা সদরে মোট আক্রান্ত সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০, ফুলছড়িতে ১, সাঘাটায় ৩, পলাশবাড়ীতে ৫, সুন্দরগঞ্জে ৩, সাদুল্যাপুরে ৭ এবং সবচেয়ে বেশি গোবিন্দগঞ্জে ২৮জন।এ পর্যন্ত জেলায় মোট আক্রান্ত ৫৫ জনের মধ্যে ৩ জন মারা গেছেন, ২২ জন ব্যক্তি সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরে গেছেন ও চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৩০ জন ।

 

আলোকিত প্রতিদিন/৩১ মে ‘২০/এসএএইচ

- Advertisement -
- Advertisement -