11:11 am |আজ শনিবার, ৩১শে শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৫ই আগস্ট ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সংবাদ শিরোনাম:
হরিরামপুরে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ কলাপাড়ায় গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার আশুলিয়ায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া মাহফিল করোনায় দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতির মৃত্যু লোহা কেন খাবেন? । ডা: সুমাইয়া আক্তার গাইবান্ধায় ৫ দফা দাবিতে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের পথসভা সাভারে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ নগরকান্দায় আজান দেয়া অবস্থায় পিতাকে জবাই করে হত্যা চেষ্টায় পুত্র আটক কক্সবাজার রুমালিয়ারছড়ার তানভীর ৫০ হাজার ইয়াবাসহ চট্টগ্রামে আটক  নোয়াখালীতে পুকুরের পানিতে ডুবে ভাইবোনের মৃত্যু
ঢামেকে ২০ কোটি টাকার ‘অস্বাভাবিক’ খাবারের বিল দেখা হচ্ছে খতিয়ে

ঢামেকে ২০ কোটি টাকার ‘অস্বাভাবিক’ খাবারের বিল দেখা হচ্ছে খতিয়ে

।।নিজস্ব প্রতিবেদক।।
ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবাদানকারী চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের এক মাসের খাবারের বিল ২০ কোটি টাকা কী করে হয়, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বিরোধীদলীয় উপনেতা ঠিকই বলেছেন, ২০ কোটি টাকা অস্বাভাবিক মনে হচ্ছে। এটা আমরা পরীক্ষা করে দেখছি। এত অস্বাভাবিক কেন হবে? যদি কোনো অনিয়ম হয় আমরা ব্যবস্থা নেব।

সোমবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী এমন মন্তব্য করেন। এর আগে আলোচনায় সংসদ উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের হাসপাতালের খাবারের বিল নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের জন্য অল্প সময়ের মধ্যে দুই হাজার ডাক্তার ও ছয় হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছি। আরও দুই হাজার চিকিৎসকের পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। আমরা চার হাজার নার্স নিয়োগ দেব। সেই নির্দেশ আমি স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ইতোমধ্যে দিয়েছি। তাদের শিগগিরই নিয়োগ দেয়া হবে। সেই সাথে স্বাস্থ্য খাতে তিন হাজার টেকনিশিয়ানের পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। তাদের নিয়োগ প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ চিকিৎসাসেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সম্পূর্ণ সরকারি খরচে হোটেলে থাকা-খাওয়া ও যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে থাকা-খাওয়ায় একমাত্র মেডিকেল কলেজের (ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল) হিসাব অস্বাভাবিক মনে হচ্ছে বলে বিরোধীদলীয় উপনেতা যেটা বলেছেন, এটা স্বাভাবিকভাবে অস্বাভাবিক মনে হয়। আমরা তদন্ত করে দেখছি, এত অস্বাভাবিক কেন হলো? এখানে কোনো অনিয়ম হলে আমরা তার ব্যবস্থা নেব।’ সংসদ নেতা বলেন, ‘যন্ত্রপাতি, টেস্ট কিট, সরঞ্জামাদি কেনাসহ চিকিৎসা সুবিধা আরও বাড়ানোর লক্ষ্যে আমরা দ্রুততম সময়ে দুই হাজার ৫০০ কোটি টাকা ব্যয়ে দুটি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছি। আরও একটি প্রকল্প চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। এগুলো বাস্তবায়ন হলে করোনা মোকাবিলায় আমাদের সামর্থ্য আরও বাড়বে বলে বিশ্বাস করি।’

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

All rights reserved. © Alokitoprotidin
এস কে. কেমিক্যালস এগ্রো লি: এর একটি মিডিয়া প্রতিষ্ঠান