আজ সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০, ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
করোনা সুরক্ষায় চিকিৎসা সামগ্রীর ঘাটতি নেই : প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্য-চীনের ফ্লাইট আসছে এখনো করোনায় গুজব ছড়ালে কঠোর ব্যবস্থা : পুলিশ মহাপরিদর্শক করোনা রোধে প্রয়োজনে অন্য দেশকেও সহায়তা করা হবে: প্রধানমন্ত্রী করোনা মোকাবেলায় এমপি দুর্জয়ের ব্যক্তিগত তহবিল : পিপিই মাস্ক ও হ্যান্ডগ্লাভস পেলেন সাংবাদিকরাও করোনা সন্দেহে বাড়িতে ঢুকতে দেয়নি গ্রামবাসী, মৃত্যু পরও যুবকের পাশে নেই কেউ দোকান বন্ধ ৪ এপ্রিল পর্যন্ত : ঢাকা মহানগর দোকান মালিক সমিতি জয়পুরহাটে ভ্যানচালকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার আশাশুনিতে খোলপেটুয়ার বেড়িবাধ ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন জনসচেতনতায় ‘করোনা হেলমেটে’ রাস্তায় পুলিশ
নিয়ম টপকে কামরাঙ্গীর চর ছাত্রলীগের সভাপতি বিপ্লব

নিয়ম টপকে কামরাঙ্গীর চর ছাত্রলীগের সভাপতি বিপ্লব

বিয়ের পর পারভেজ হোসেন বিপ্লবের শ্বাশুড়ি, বিপ্লব, শ্বশুড়, বউ। এই ছবিটির যতেষ্ট প্রমাণ নয় বলে দাবি মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসানের কাছে।

♦ থানা আ.লীগ ও ছাত্রলীগে সমালোচনার ঝড়
♦ বিপ্লবের ছাত্রত্ব কোন প্রতিষ্ঠানে জানেন না মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি

আরমান বাদল
ছাত্রলীগের নিয়ম ভেঙেই কামরাঙ্গীর চর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি বনে গেলেন পারভেজ হোসেন বিপ্লব। এক দিকে তার বিরুদ্ধে রয়েছে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের নানা অভিযোগ, অন্যদিকে ছড়িয়ে আছে মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে থাকার কথা। এদিকে বিপ্লবের ছাত্রত্ব কোন প্রতিষ্ঠানে জানেন না মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি। অথচ তারই স্বাক্ষরে অনুমোদন পেয়েছে নতুন এই কমিটি। সব মিলিয়ে কামরাঙ্গীর চরের স্বাধীনতার চেতনায় উদ্ভাসিত আওয়ামী লীগের নেতা থেকে শুরু করে ছাত্র লীগের অনেকের কাছেই এমন একজনকে এই পদে দেখাটা অপ্রত্যাশিত। মোটা অঙ্কের বিনিময়ে এই পদ পেয়েছেন বলেই জানান তারা।
অছাত্র কিংবা বিবাহিত কেউ দায়িত্বে থাকা ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র পরিপন্থি। অথচ খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ২০১৮ সালের ১৭ আগস্ট জমকালো আয়োজনে বিয়ের সানাই বাজিয়ে রাজধানীর হাজারীবাগের ২২ নম্বর ওয়ার্ডের ভগলপুর লেনের বাবুল মিয়া ও রোজির একমাত্র মেয়ে সুজানাকে বিয়ে করেন বর্তমান থানা সভাপতি পারভেজ হোসেন বিপ্লব। বড়গ্রাম বাজারের পাশে বিপ্লবের বাড়িতেই স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করেন তিনি। বিয়ের সময়ের এবং পরের রয়েছে বেশ কিছু ছবিও। যদিও এই ছবিকে অস্বীকার করেছেন বিপ্লব। আবার ছবি দেখেও না দেখার ভান করে ‘বিয়ের প্রমাণ পাননি’ বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান।
এছাড়া বিপ্লবের হাতে একাধিকবার হামলা ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান রতন, বলে রয়েছে অভিযোগ। বিপ্লবের ক্যাডার বাহিনী বেশ কয়েকবার সাইদুর রহমানের বাড়িতেও হামলা চালান এবং দলীয় কার্যালয় পুড়িয়ে দেন। একইভাবে থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আনোয়ার হোসেনকে কামরাঙ্গীর চর থানার ভেতরে পুলিশের সামনেই নির্মমভাবে পিটিয়ে আহত করেন এই বিপ্লব। ৫৬ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবু দেওয়ানের বাড়িতে হামলা করে দুটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়। একইভাবে কামরাঙ্গীর চর থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান আকন্দের বাড়িতেও হামলা করে ঘরবাড়ি ভাঙচুরসহ মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। অন্যদিকে থানা ছাত্রলীগেরই সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মো. মোরসালীনকে গত রমজানে নামাজ পড়তে যাওয়ার পথে হামলার শিকার হন।
এমন সব অভিযোগ ও নিয়মের বাইরে গত বুধবার মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক যোবায়ের আহমেদের সই করা এক চিঠিতে এক বছরের জন্য পারভেজ হোসেন বিপ্লবকে সভাপতি ও এম এইচ মাসুদ মিন্টুকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করা হয়।
কমিটি ঘোষণার পরপরই কামরাঙ্গীর চরের নেতাকর্মীরা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। কামরাঙ্গীর চরের নেতাকর্মীরা অভিযোগ করেন, সংগঠনের আইন না মেনে ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের বঞ্চিত করে শুধু অর্থের লোভে বিপ্লবকে এই পদ দেওয়া হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা বলেন, ‘বিবাহিত ও মাদকাসক্ত এমন ভয়ংকর ছেলেটিকে বানানো হলো সভাপতি। তাহলে ভালো এবং মেধাবী ছেলেরা কিভাবে ছাত্ররাজনীতি করবে?’
এ ব্যাপারে থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বিতর্কিত বিপ্লবকে থানার সভাপতি করায় আমরা বিস্মিত। যতটুকু জানি মহানগরের সভাপতি মেহেদী হাসান ১০ লাখ টাকার বিনিময়ে একজন বিবাহিত ও মাদক সেবনকারীকে এই পদ দেওয়া হয়েছে।’ কামরাঙ্গীর চর থানা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন শাহীন বলেন, ‘শুদ্ধি অভিযানের মধ্যে আমরা সব কিছুই শুদ্ধ চাই। কিন্তু মাদক সেবনকারী এবং বিবাহিত একজনকে সভাপতি করায় আমরা ক্ষুব্ধ ও মর্মাহত।’
বিভিন্ন অভিযোগ প্রসঙ্গে পারভেজ হোসেন বিপ্লবকে ০১৬….৪২১ নম্বরে বারবার চেষ্টার পরও যোগাযোগ সম্ভব হয়নি। পদ দেওয়ার বিষয়ে মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক যোবায়ের আহমেদ বলেন, ‘সাধারণ সম্পাদক মিণ্টুকে সাধারণ সম্পাদক করার বিষয়ে আমার ভূমিকা ছিল; কিন্তু বিপ্লবের বিষয়ে সভাপতি মেহেদী হাসান পীড়াপীড়ি করেছেন। ওপরের থেকে চাপ ছিল। এখন আমরা কী করব, ভাই।’
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান বলেন, ‘ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান বলেন, ‘কামরাঙ্গীরচর থানায় তিনজন প্রার্থী ছিল। তিনজনই বিবাহিত বলে একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল। তাছাড়া সাজানো ছবি দিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। বিবাহিত হওয়ার কোনো প্রমাণ আমরা পাইনি। এই তিনজনের বাইরে কেউ প্রার্থী ছিলো না বলেই দুজনকে বেছে নিয়েছি। আর এক জন প্রার্থীর বয়স ছিলো না।’ তিনি আরও বলেন, ‘কমিটি ঘোষণার আগে আমরা খোঁজ-খবর নিয়ে তার বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পাইনি। থানার ওসিও তার পক্ষেই কথা বলেছেন। এখনও তার পক্ষেই আছেন। কিন্তু কমিটি ঘোষণার পর অনেকে অনেক অভিযোগ নিয়ে আসছেন এবং বলছেন, বিপ্লবের বিয়ের দাওয়াত খেয়েছেন।’ বিপ্লবের ছাত্রত্ব কোন প্রতিষ্ঠানে আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘দেখে জানাতে পারবো।’ কিন্তু পরে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে বাইকের ওপরে আছেন, পরে কথা হবে বলে এড়িয়ে যান।
এ বিষয়ে ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, ‘আমরা অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখবো। অভিযোগ সত্য হলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 Alokito Protidin
Developed By Rudra Amin