আজ বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন

প্রকল্প থেকেই কোটিপতি ডিএসসিসির তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বোরহান

প্রকল্প থেকেই কোটিপতি ডিএসসিসির তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী বোরহান

প্রকৌশলী কাজী বোরহান

জোসনা মেহেদী

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী কাজী বোরহানের বিরুদ্ধে এবার উঠেছে চোখ ধাঁধানো অভিযোগ। বিএনপি-জামাতের সময়ে করপোরেশনে এসে ওই তত্বাবধায়ক আজ পর্যন্ত চালিয়ে যাচ্ছেন স্বেচ্ছাচারিতা। অভিযোগ আছে অর্থ ও প্রকল্প নিজের মতো করেই পরিচালনা করে যাচ্ছেন তিনি। বিভিন্ন প্রকল্প থেকে ঠিকাদারদের জিম্মি করে হাতিয়ে নিয়েছেন কোটি কোটি টাকা। তার দাপটে কোট ঠাঁসা হয়ে পড়েছেন স্বাধীনতার চেতনায় উদ্ভাসিত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। জানা যায়, বোরহান এক সময় যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমের বাসায় ভাড়াটিয়া ছিলেন এবং তারই সুবাদে বাগিয়ে নেন চাকরি। আর সাদেক হোসেন খোকার আমলে বর্তমানে মালয়েশিয়ায় পলাতক সাবেক কমিশনার এম এ কাইউমের সহযোগিতায় বহু সিনিয়রকে ডিঙ্গিয়ে নির্বাহী প্রকৌশলীর দায়িত্ব পান। একই ভাবেই হাসিল করে নেন তত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর পদ।
সূত্র জানায়, বিএনপির আমলে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমের সহযোগিতায় প্রকৌশলী কাজী বোরহান ঠিকাদারী শুরু করেন। বিএনপির সাবেক সাংসদ হারুনুর রশিদ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জের ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেন। এ সময়ই তার বদৌলতে ভাগ্য খোলে বোরহানের। অন্যদিকে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আজমের বাসায় ভাড়াটিয়া থাকার সুবাদে ২০০১ সালে বিএনপি-জামাতের সুপারিশে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সহকারী প্রকৌশলী পদে যোগ দেন।
তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী কাজী বোরহানের বিরুদ্ধে এক অভিযোগে জানা যায়, ‘ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন প্রকল্পের শত শত কোটি টাকা আত্মসাতে মেতে উঠেছেন তিনি। আগেও ছিলেন, তবে এখন মাত্রা আরও অনেক বেড়েছে।’ ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাদেক হোসেন খোকার আমলে বর্তমানে মালয়েশিয়ায় পলাতক সাবেক কমিশনার এম এ কাইউমের সহযোগিতায় সিনিয়রদেরকে ডিঙ্গিয়ে উচ্চ পদে নির্বাহী ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ইতিপূর্বে তার বিরুদ্ধে লুটপাট, প্রকল্পের অর্থ আত্মসাত ও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। মাদারটেক নতুনপাড়া বাইলেন হোল্ডিংয়ের রাস্তা নির্মান কাজে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ হইলে সংশ্লিষ্ট ফাইলটি প্রকৌশলী নিজেই গায়েব করে দেয়ারও অভিযোগ রয়েছে। এ ছাড়াও ২০২০ সালে শ্যামপুর, ধনিয়া, ডেমরা ইউনিয়ন এলাকার প্রকল্পের কাজ না করে ঠিকাদারের যোগসাজসে কোটি কোটি টাকার বিল তুলে নিয়েছেন।
জানা যায়, ১৯৮৬ সালে চাঁদপুর ফরাজিয়া কান্দিয়া ওয়াইসিয়া সিনিয়র মাদ্রাসা থেকে দাখিল পাস করেন কাজী বোরহান। এরপর সেখান থেকেই সরাসরি শিবিরের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। তার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলায়। পিতা আব্দুল মতিন কাজী। ঠিকাদার ও একাধিক সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে তিনি শত কোটি টাকার সম্পদের মালিক। রয়েছে বিদেশে অর্থ পাচারসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ।
এ বিষয়ে তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী কাজী বোরহানের মুঠোফোনে বারবার চেষ্টার পরও যোগাযোগ সম্ভব হয়নি। ক্ষুদে বার্তাপাঠিয়ে অপেক্ষার পরও কোন প্রতিতুত্তোর আসেনি। পরে আবারও যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি কল ধরেননি।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 Alokito Protidin
Developed By Rudra Amin