আজ বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ০৭:৪২ পূর্বাহ্ন

সাহিত্যালো : ছড়াপদ্য

সাহিত্যালো : ছড়াপদ্য

                                               

 চি ত্ত র ঞ্জ ন সা হা চি তু

বর্ণমালার ছড়া

অ আ ক খ বর্ণমালা
এই বাঙালির প্রাণ,
জুঁই চামেলী শিউলি টগর
মিষ্টি ফুলের ঘ্রাণ।

বাংলা ভাষায় মাকে ডাকি
পাই খুঁজে তাই সুখ,
ভালবাসা আদর সোহাগ
ভরায় যেন বুক।

এই ভাষাকে আনতে গিয়ে
রক্ত গেল কতো,
আজও তারা আলো ছড়ায়
লক্ষ তারার মতো।

ফেব্রয়ারির একুশ তারিখ
যখন ফিরে আসে,
শহীদ মিনার ফুলে ফুলে
তখন দেখি ভাসে।

 

 

 

ম জ নু মি য়া
ডায়রি থেকে বলছি

অনেক কথা বুকের ভেতর
রেখে দিছি জমা,
বলতে যদি না পারি তা
করে দিও ক্ষমা।

অনেক রাতের ঘুম কেড়েছো

স্বপ্ন দিয়ে চোখে,
সেই ভাবনায় চলতে গিয়ে
পাগল বলে লোকে।

কত ভালোবাসা দিবস
তোমায় ভেবে ভেবে,
মনের ভেতর রেখে দিছি
স্বপ্ন বুকে চেঁপে।

অনেক কথাই লেখা আছে
ডায়রি-পাতা জুড়ে,
যে-দিন আমি থাকব না তা
দেখবে পড়ে ভোরে।

 

 

 

জ হি র টি য়া
কমলাদি

রাতদিন খেটে খেটে দেহখানা মেটে
স্বামী তার গেছে মরে রোগব্যাধি ঘেঁটে
সেই থেকে শুরু হল বাড়ি বাড়ি কাজ
কাজ টেনে রাতদিন দেহে পড়ে ভাঁজ।

দুই বেলা দুই মুঠো আহারের জন্য
এর ওর কাজ টানে নয় তবু গণ্য
কাজ টেনে খায় তবু দেয় গালাগালি
সবকিছু সয়ে দিন কাটে জোড়াতালি।

একদিন বাদ দিয়ে দিলো সব কাজ
নিজে কিছু ঋণ নেয় আর কাটে খাঁজ
দুইটা ছাগল কিনে পালতে যে লাগে
বছর ঘুরেই তাতে ভাগ্যটা জাগে।

মাসে মাসে পাল বাড়ে বছর শেষে
মোটা অঙ্কের টাকা গোনে হেসে হেসে
সেই হতে কমলাদি সুখ খুঁজে পায়
নিজ পায়ে দাঁড়িয়ে সে পেট পুরে খায়।

মাঠে মাঠে ঘুরে ঘুরে চড়ায় ছাগল
তাই তাকে অনেকেই ভাবেন পাগল
কোনো কাজ নয় ছোট কমলাদি মানে
নিজকাজ পরকাজ চেয়ে ভালো, জানে।

এইভাবে কমলাদি মুখে নিয়ে হাসি
সংসারে সুখ আনে নয় কারো দাসী।

 

 

কা ব্য ক বি র
ওদের আশায় থাকি

ভাষার সম্মান রাখতে খোকা
করতে গেলো যুদ্ধ,
শত্রু মেরে এই দেশটাকে
করবে খোকা শুদ্ধ।

যুদ্ধ করতে গিয়ে খোকা
হারায় প্রাণপাখি,
ভাই হারানোর কষ্ট বলো
কেমনে সহে থাকি?

শহীদ ভাইয়ের ছবি একে
মনের মাঝে রাখি,
আসবে ওরা এই আশাতে
পথে চেয়ে থাকি।

 

লেখা পাঠাতে ইমেইল : ahsan.kabir1984@gmail.com

তরুণ ঔপন্যাসিক শাহীন রহমানের ‘লালশাড়ি’

একুশ ও আছিয়ার গল্প

সাহিত্যালো : কবিতা


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 Alokito Protidin
Developed By Rudra Amin