ঘিওর উপজেলাকে অত্যাধুনিক উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলা হবে: আব্দুল আলীম মিন্টু

সৈয়দ এনামুল হুদা: সকল দিক দিয়ে ঘিওর উপজেলাকে অত্যাধুনিক উপজেলা হিসেবে গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন ঘিওর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও আসন্ন ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আব্দুল আলীম মিয়া মিন্টু। উপজেলা পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে রবিবার রাতে মানিকগঞ্জের ঘিওর উপজেলার সিংজুরী ও বালিয়াবাধায় আয়োজিত এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি আরো বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের সরকার আর এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আমি উপজেলা নির্বাচনের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে আপনাদের দোয়া ও সমর্থন কামনা করছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন যাবৎ আওয়ামী লীগ রাজনীতির সাথে জড়িত, যেহেতু এই প্রথম উপজেলা নির্বাচন দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হবে বিধায় আমি বিশ্বাস করি দল আমাকে মনোনয়ন প্রদান করবেন। আর তাই আমি আপনাদের সমর্থন ও সহযোগিতা কামনা করছি।’

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আতোয়ার রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল বাহার শামীম, আইন বিষয়ক সম্পাদক সরওয়ার কিরন, প্রচার সম্পাদক গৌরংগ বাবু, কৃষক লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক ভিলু, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, এছাড়াও আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের ইউনিয়ন থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, আব্দুল আলীম মিন্টু দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ আওয়ামীলীগ রাজনীতির সাথে জড়িত। তিনি ১১ বছর ঘিওর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও ৪ বছর ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং দুই দুইবার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিষ্ঠার সাথে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। উপজেলা রাজনীতির দুঃসময়ে তিনিই রাজনীতি ধরে রেখেছেন যখন উপজেলায় জয় বাংলা বলার মত লোকের অভাব ছিলো। তিনি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের প্রত্যেকটি গ্রাম থেকে শুরু করে সকল স্থানে সভা-সমাবেশ এবং লিফলেট বিতরণ করে দোয়া ও সমর্থন চেয়ে যাচ্ছেন। প্রচার প্রচারণায় তিনি সকল প্রার্থীদের থেকে এগিয়ে আছেন। আকর্ষণীয় বিষয় হচ্ছে সারা বাংলাদেশে তিনিই সর্বপ্রথম উপজেলা নির্বাচন উপলক্ষে প্রচারণা শুরু করেন।

আলোকিত প্রতিদিন/০৪ ফেব্রুয়ারি/আরএইচ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন