নিয়মনীতি ছাড়া অবৈধ ভাবে গাছ কর্তন

সাইফুল মিলন, গাইবান্ধা: গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়নে সামাজিক বনায়ন বিভাগের আওতায় টেন্ডার ছাড়াই অবৈধভাবে ইউপি রাস্তার দু’ধারের গাছ কর্তন করে বিক্রি করছে গাছ খেকো সিন্ডিকেট।

ওইসব এলাকার স্থানীয় লোকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউপি’র কাশিয়াবাড়ী-চতরা রাস্তা, শ্রীমুখপাড়া কাশিয়াবাড়ী ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রাস্তা, প্রজাপাড়া থেকে শিমুলতলা বাজার রাস্তা, শিমুলতলা বাজার থেকে মির্জাপুর রাস্তা, মির্জাপুর ঈদগাহ মাঠ থেকে প্রজাপাড়া রাস্তাসহ বিভিন্ন রাস্তার দু’ধারে সামাজিক বনায়নের আওতায় রোপনকৃত ইউক্লিপটার্স গাছগুলো কর্তন করে বিক্রি করা হচ্ছে। ওইসব এলাকার এক শ্রেণির অসাধু ব্যক্তি সমিতির নাম করে এসব রাস্তার গাছ কর্তনের মহোৎসব চালাচ্ছে। সরকারী নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে একটি সিন্ডিকেট সকলকে ম্যানেজ করে এসব গাছ কর্তন করছেন। এতে করে একদিকে যেমন পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে-অন্যদিকে সরকার এ খাত থেকে বিপুল পরিমাণ রাজস্ব হারাচ্ছে।

শ্রীমুখপাড়ার রাস্তার গাছ কর্তনের বিষয়ে সমিতির সভাপতি সানাউল ইসলাম জানান, বিভিন্ন মহল দিনে বা রাতের আধারে প্রভাব খাঁটিয়ে এসব গাছ কর্তন করছে। এ বিষয়ে অপর সমিতির সদস্য আব্দুস সালাম ভুট্টু’র মন্তব্য নিতে গেলে তিনি বলেন, আমরা গাছ কর্তন করি আপনারা আমাদের ধরেন। আর এ ব্যাপারে আপনারা নিউজ করবেন না মামলা করবেন করেন। তবে এসব গাছ কর্তনের পিছনে বাপেরও বাপ জড়িত আছে।

কিশোরগাড়ী ইউপি’র বিভিন্ন রাস্তার দু’ধারে গাছ কর্তনের বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম রিন্টু জানান, স্থানীয় লোকজনসহ সমিতির সদস্যরা চুরি করে এসব গাছ কর্তন করছে। তবে গাছ কর্তন রোধ করা যাচ্ছে না। ফলে সরকার ও ইউনিয়ন পরিষদ বিপুল অংকের রাজস্ব হারাচ্ছে।

স্থানীয়দের দাবী সরকারী নিয়মনীতি ছাড়া বিনা টেন্ডারে অবৈধ ভাবে এসব গাছ কর্তন করে বিক্রির সাথে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করে গাছ কর্তন বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আলোকিত প্রতিদিন/২০ জুন/আরএ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন