শত বছরের ঐতিহ্য নাঙ্গলকোট ঠান্ডাকালি বাড়ি মেলা অনুষ্ঠিত

কুমিল্লা সংবাদদাতা: কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী ঠান্ডাকালি বাড়ি কৃষি মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার উপজেলার ঢালুয়া ইউনিয়নের মোঘরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠসহ আশ-পাশের এলাকা ও রেললাইনের পাশে শীতকালীন এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রায় শত বছর ধরে বাংলা সনের মাঘ মাসের প্রথম দিনে শীতকালীন ঠান্ডাকালি বাড়ির এ মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ী ও পর্যটকরা এসে আনন্দ উপভোগ ও কেনাকাটা করেন। মেলা উপলক্ষে বাঁশির ডাক, নাগরদোলাসহ শিশু, কিশোর ও বয়ো-বৃদ্ধদের বিভিন্ন ধরণের আনন্দদায়ক দ্রব্যসাদ্রিক ও হরেক রকমের খাবারসহ প্রয়োজনীয় নানা সামগ্রী পাওয়া যায়। এ মেলায় প্রধান আকর্ষন হলো মাছ। কে কার আগে কত বড় মাছ কিনবে, তা নিয়েই চলে এ মেলায় প্রতিযোগিতা। একদিনের এই মেলায় দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ট্রেন যোগে ও সড়ক পথে হাজার হাজার মানুষের সমাগম ঘটে। শিশু থেকে শুরু করে সকল বয়স সকল শ্রেণির মানুষ মেলায় তাদের পছন্দের জিনিস ক্রয় করতে আসেন।

উপজেলার হরিপুর গ্রামের শাখাওয়াত হোসেন বলেন, শত বছরের ঠান্ডাকালী বাড়ির এ মেলায় সকাল থেকে ঘুরে ঘুরে অনেক আনন্দ করেছি। মেলার প্রধান আকর্ষন ছিলো মাছ। তাই ৫ হাজার টাকা দিয়ে একটি সামুদ্রিক মাছ কিনেছি।’ মেলাটি ২ দিনব্যাপী হলে আরও ভালো হতো বলে জানান তিনি।

এ মেলার ব্যবসায়ী ছায়েদুল ইসলাম বলেন, ‘অনেক টাকা খরচ করে মেলায় জিলাপী ও খেলনা দোকান দিয়েছি। বেচা-কেনাও ভালোই হচ্ছে। তবে মেলাটি ১দিনের জন্য না হয়ে ২/৩ দিনের জন্য হলে আমরা আরও বেশি লাভবান হতে পারতাম।’

মেলার আয়োজক কমিটির সদস্য সুজন জানান, শত বছর ধরে চলে আসা এ মেলা ‘ঠান্ডাকালী বাড়ির’ মেলা নামে পরিচিত। মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ব্যবসায়ী ও পর্যটকরা আসেন। আনন্দ উপভোগ করেন। মেলায় যে কোন ধরণের দুর্ঘটনা এড়াতে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন ও স্থানীয় লোকজন নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

আলোকিত প্রতিদিন/১৪ জানুয়ারি/আরএ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন