বোলারদের ব্যাটে স্বস্তিতে দিন শেষ বাংলাদেশের

ক্রীড়া ডেস্ক: প্রথম দিন শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ৩১৫ রান সংগ্রহ বাংলাদেশের। এখন দেখার বিষয় সফরকারী উইন্ডিজদের বিপক্ষে কতটা বড় স্কোর করতে পারে স্বাগতিকরা।

গ্যাব্রিয়েলের ভয়ংকর বোলিংয়ে তছনছ হয়ে যায় টাইগারদের সাজানো ব্যাটিং। বড় রানের সম্ভাবনা থাকলেও শেষ পর্যন্ত ৩০০ পার হবে কিনা তা নিয়ে ছিল সংশয়। তবে অভিষিক্ত নাঈম ও তাইজুলের ব্যাটে ৩০০ পার হয়। উইন্ডিজ সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিন শেষে টাইগাররা আট উইকেট হারিয়ে ৩১৫ রান করে। নাঈম-তাইজুল দুজনই অপরাজিত থাকেন ২৪ ও ৩২ রানে। আলোক স্বল্পতার কারণে নির্ধারিত ওভার শেষ হওয়ার আগেই সমাপ্তি টানেন আম্পায়ার। ৯০ ওভার খেলা হওয়ার কথা থাকলেও খেলা হয় ৮৮ ওভার।

দিনের প্রথম দুই সেশন বেশ সাফল্যের সঙ্গেই কাটায় বাংলাদেশ। তবে চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় সেশনে এসে শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ঝড়ে হঠাৎ ম্যাচের গতি পাল্টে যায়। মুমিনুলের সেঞ্চুরিতে তিন উইকেটে ২১৬ রান নিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল বাংলাদেশ। বিরতি ভেঙে ফেরার পর ১৯ রানের মধ্যে পতন হয় চার উইকেটের।

বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ইনিংসের প্রথম ওভারেই শূন্য রানে ফিরেন সৌম্য। এরপর দ্বিতীয় উইকেটে ইমরুল-মুমিনুল শত রানের জুটি গড়েন। তবে প্রথম সেশনেই ৪৪ রান করে বিদায় নেন ইমরুল। এরপর মিঠুনকে নিয়ে তৃতীয় উইকেটে ৪৮ ও সাকিবকে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ৬৯ রান যোগ করেন মুমিনুল। এর মধ্যে টেস্ট ক্যারিয়ারে অষ্টম সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। চতুর্থ উইকেটে মুমিনুল-সাকিব জুটি অবিচ্ছিন্ন থেকে দ্বিতীয় সেশন শেষ করেন।

তবে তৃতীয় সেশনে হঠাৎ গ্যাব্রিয়েল ঝড়ে ম্যাচের অবস্থা পাল্টে যায়। সেঞ্চুরিয়ান মুমিনুল ও সাকিবসহ পরপর চার উইকেট তুলে নেন তিনি। এতে হঠাৎ ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ চলে যায় ক্যারিবীয়দের হাতে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মুমিনুল ১২০ ও সাকিব ৩৪ রান করেন।

আলোকিত প্রতিদিন/ ২২নভেম্বর/এমকে

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন