তামাক চাষে ব্যস্ত মানিকগঞ্জের কৃষকরা

শরিফুল ইসলাম, ঘিওর (মানিকগঞ্জ): মানিকগঞ্জের সদর উপজেলা, সাটুরিয়া, ঘিওর ও দৌলতপুরে তামাক চাষে ব্যস্ত সময় পার করছে কৃষকরা। বর্ষার পানি নেমে যাওয়ার সাথে সাথেই ভাল দাম পাওয়ার আশায় জেলার বহু চাষি দীর্ঘদিন যাবত আগ্রহের সাথে এ তামাক চাষ করে আসছেন।

তামাক মানবদেহ ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর ফসল বলে তামাক চাষ বন্ধে বিভিন্ন সময় সরকারি, বেসকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে নানারকম পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়। তবে তামাক চাষে বেশি লাভ হওয়ায় এফসল চাষ থেকে মুখ ফেরাতে পারছেননা কৃষকরা। এছাড়াও তামাক প্রস্তুতকারী কম্পানী গুলোর লোভনীয় প্রস্তাবে সারা দিয়ে তারা এচাষাবাদ চালিয়ে যাচ্ছেন।

তামাক চাষ করেন এমন বেশকয়েকজন কৃষকের সাথে তথা হলে তারা জানান, তামাক চাষে অন্য ফসলের তুলনায় বেশি লাভ হয়। এই ফসল চাষে প্রতি বিঘায় আট থেকে দশ হাজার টাকা খরচ হয়, এতে লাভ হয় ত্রিশ থেকে পয়ত্রিশ হাজার টাকা। এ ছাড়াও তামাকের পাতা থেকে শুরুকরে সব কিছুই বিক্রি করা যায়। তাই তামাক চাষে কৃষকদের আগ্রহ একটু বেশি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত বছর তুলনায় এবছর মানিকগঞ্জে তামাক চাষ অনেকাংশে কমে এসেছে। গত বছর এজেলায় ২০৪০ হেক্টর জমিতে তামাক চাষ হয়েছিল। সেখানে এবছর হয়েছে ১৭০০ হেক্টর জমিতে।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন সময় সচেতনতামূলক সভা করে কৃষকদের তামাক চাষে নিরউৎসাহীত করে যাচ্ছি। পাশাপাশি অন্যান্য লাভজনক ফসল চাষে তাদেরকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে।

আলোকিত প্রতিদিন/২১ নভেম্বর/আরএইচ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন