কেরানীগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেড়ধরে স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করেছে স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকার কেরানীগঞ্জে পারিবারিক কলহের জেড়ধরে স্ত্রীকে গলাকেটে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এক পাষণ্ড স্বামী। পুলিশ আজ মঙ্গলবার(২০নভেম্বর) সকাল ১১টায় নিহতের লাশ ডাক পাড়া পুকুর পাড় এলাকায় নিহতের ভাড়া বাসা থেকে উদ্ধার করেছে। ময়না তদন্তের জন্য নিহতের লাশটি স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের নাম শাহীনুর আকতার(৩৮)) । ঘাতক স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেন(৪৫) ঘটনা ঘটিয়েই পলাতক রয়েছে। নিহত শাহীনুর আকতার তিন সন্তানের জননী।

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার এসআই মোঃ ওবায়দুর রহমান জানান, ঘাতক স্বামী জাহাঙ্গীর হোসেন জিনজিরা এলাকায় বাসাবাড়ির ময়লা নেয়ার কাজ করতো। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে জিনজিরা ইউনিয়নের ডাকপাড়া এলাকায় পুকুর পাড়ে জৈনক এনায়েত মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতো। তার পাশেই থাকতো তার মেয়ের জামাই তোতা মিয়া । মেয়ের জামাইও জাহাঙ্গীরের অধীনে ময়লা নেয়ার কাজ করতো। কিন্তু জাহাঙ্গীর তার মেয়ের জামাই তোতা মিয়কে ঠিকমতো টাকা-পয়সা দিত না । এই পাওনা টাকা নিয়ে জাহাঙ্গীরের সাথে তার স্ত্রী শাহীনুর আকতারের বেশ কয়েকদিন ধরে ঝগড়া চলছিল। সোমবার রাত ১০টার সময় জাহাঙ্গীরের সাথে শাহীনুরের আবার ঝগড়া বাধে। এসময় জাহাঙ্গীরের সন্তানেরা তাদের মা-বাবার ঝগড়া থামানোর চেষ্টা করে। এই ঘটনার জেড়ধরে রাত ৪টার সময় জাহাঙ্গীর তার ঘুমন্ত শাহীনুরকে রান্নাঘরের ধারালো বটি দিয়ে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায়। নিহতের দ্বিতীয় মেয়ে সোনিয়া জানান, মায়ের কান্নার শব্দ শুনে তার ঘুম ভেঙ্গে যায়। এসময় সে দেখতে পায় তার বাবা তার মাকে ধারালো বটি দিয়ে আঘাত করছে। এতে সে তার বাবাকে বাঁধা দেয়। কিন্তু তার বাবা তাকেও হত্যার হুমকি দিলে সে ভয়ে চুপ হয়ে যায়। জাহাঙ্গীরের মেয়ের জামাই তোতা মিয়া জানান, তার শশুর একজন বদমেজাজি লোক । তার সাথে ময়লার কাজ করে ঠিকমতো তাকে টাকা-পায়সা দিত না। তার কাছে টাকা চাইতে গেলেই সে খারাপ ব্যবহার করতো। তার পাওনা টাকা চাওয়ার কারনেই ঘাতক শশুর জাহাঙ্গীর তার শাশুড়িকে গলাকেটে হত্যা করে রাতের আধারে পালিয়ে গেছে। ঘাতক জাহাঙ্গীর হোসেনের বাড়ি চট্টগ্রামে এবং নিহত শাহীনুরের বাড়ি ভোলা জেলায়।

এব্যাপারে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের জানান, ঘাতক জাহাঙ্গীর হোসেনকে দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

আলোকিত প্রতিদিন/২০ নভেম্বর/এমকে

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন