চট্টগ্রামে ১৬ আসনে ভোট গ্রহনের জন্য ৩৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তা প্রস্তুত

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা: চট্টগ্রামে ১৬ আসনে ভোট গ্রহণের জন্য ৩৭ হাজার ৪৪০জন কর্মকর্তার ভোট গ্রহণে দায়িত্ব পালন করবেন। যাচাই-বাছাই শেষে তিন ক্যাটাগরিতে এ প্যানেল চূড়ান্ত করেছে নির্বাচন কমিশন। জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার নগরের ৬টি সহ চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে ১ হাজার ৮৯৯টি ভোটকেন্দ্রে ১০ হাজার ৬৮৩টি বুথে (কক্ষ) তিন ক্যাটাগরিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা ভোট গ্রহণের দায়িত্ব পালন করবেন। এরমধ্যে প্রিসাইডিং অফিসার ২০৮৯ জন, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ১১ হাজার ৭৫২ জন এবং পোলিং অফিসার ২৩ হাজার ৫৯৯ জন। মোট ১৮৯৯টি ভোট কেন্দ্রের ১০ হাজার ৬৮৩টি বুথে (ভোট কক্ষ) সুষ্ঠু ভোট গ্রহণে দায়িত্ব পালন করবেন তারা।

থানা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা চট্টগ্রামের বিভিন্ন সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-বীমা অফিসে কর্মরত কর্মকর্তাদের যে তালিকা জেলা নির্বাচন অফিসে পাঠিয়েছিলেন সেই তালিকা থেকে যাচাই বাছাই করে চূড়ান্ত তালিকা চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের ১৬ সংসদীয় আসনের ১ হাজার ৮৯৯টি ভোটকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনের জন্য প্যানেল তৈরির কাজ চলমান রয়েছে। শিগগরিই ভোট গ্রহণের জন্য এ প্যানেল তৈরির কাজ শেষ হবে। ইতিমধ্যে প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার এই তিন ক্যাটাগরিতে ৩৭ হাজার ৪৪০জন কর্মকর্তাদের তালিকা করা হয়েছে।

এই ব্যাপারে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো: মুনীর হোসাইন খান জানান, আমরা চূড়ান্ত তালিকা কমিশনে পাঠিয়েছি। সেখান থেকে শেষ পর্যায়ে কিছু বাদও যেতে পারে। পুনঃতফসিল অনুযায়ী আগামী একাদশ জাতীয় সংসদের ভোট গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো বলেন, ভোটার তালিকা অনুযায়ী এবার চট্টগ্রামে (চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলায়) মোট ভোটার সংখ্যা ৫৬ লাখ ৩৯ হাজার ৩৬৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২৯ লাখ ১৪ হাজার ৪২১জন এবং মহিলা ভোটার ২৭ লাখ ২৪ হাজার ৯৪২জন।

মহানগরীর ভোটার সংখ্যা ১৯ লাখ ৩ হাজার ৬৮৫জন। ১৫ উপজেলায় ভোটার সংখ্যা ৩৭ লাখ ৩৫ হাজার ৬৭৮জন। এর আগে ১৭ অক্টোবর ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য চট্টগ্রামের সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত সকল প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-বীমা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য সংস্থার প্রধানদের কাছে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত চিঠি পাঠানো হয়। চিঠি পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠান প্রধানরা জেলা নির্বাচন অফিসে সম্মতি জানিয়ে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য নিজ নিজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তালিকা প্রেরণ করেন। এরপর থেকেই জেলা নির্বাচন অফিস যাচাই বাছাই করে চূড়ান্ত প্যানেল তৈরির তালিকা চূড়ান্ত করণের কাজ করছে।

আলোকিত প্রতিদিন/১৭ নভেম্বর/আরএ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন