নদী ভাঙ্গনে বিলিন সড়ক, ভোগান্তিতে ১০ গ্রামের মানুষ

গাইবান্ধা সংবাদদাতা: গাইবান্ধার বোনারপাড়া-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের ত্রিমোহনী ব্রীজের পশ্চিম পার্শ্বে জেলার গোবিন্দগঞ্জ এলাকায় প্রায় এক কিলোমিটার সড়কে কাটাখালী নদীর ভাঙ্গনে বিলিন হওয়ায় ১০টি গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ চলাচলে ভোগান্তিতে পড়েছেন। রিক্সা, ভ্যান তো চলেই না, পায়ে হেটে চলাচল করতেও সম্মস্যা হচ্ছে এলাকাবাসীদের।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা শহর থেকে বিশ পুকুর গ্রামের ব্যাবসায়ীরা সড়ক ভেঙ্গে যাওয়ায় ভ্যান থেকে রাসায়নিক সার নামিয়ে বাইসাইকেল যোগে পরিবহন করছেন। ইতোপ‚র্বে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কাজিরপাড়া, বিশপুকুরসহ কয়েকটি গ্রামে থাকা ক্লিনিক, মাদ্রাসা এবং বহু স্থাপনা কাটাখালি নদীতে বিলিন হয়ে গেছে। হুমকির মুখে আছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি বাজার ও বসতবাড়ি।

স্থানীয়রা জানান, সাঘাটা এলজিইডির ২৮ কোটি টাকা ব্যায়ে ব্রীজ তৈরি করে তার কোন শুফল পাচ্ছেননা তারা। এক কিলোমিটার রাস্তা ভাঙ্গাচুড়া।’

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলেন, ‘সেতুটির পশ্চিম পার্শ্বে সংযোগ সড়ক অতি জরুরি। গোবিন্দগঞ্জের মহাসড়কের সাথে সংযোগের ক্ষেত্রে প্রায় ৪৫ কি.মি রাস্তা কমে আসবে। মানুষ মাত্র ২৫ মিনিটে গোবিন্দগঞ্জে পৌঁছবে। তাদের মতে ৪৫ কি.মি ঘুরে লোকজনের প্রায় অতিরিক্ত ১ ঘন্টা ব্যয় হয় গোবিন্দগঞ্জে যেতে।’

সাঘাটা উপজেলার এলজিইডির প্রকৌশলী ছাবিউল ইসলাম বলেন, ‘রাস্তাটি এলজিইডির হলেও পশ্চিমপাশ গোবিন্দগঞ্জ এলাকায়, সেখানে সড়কের বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারবোনা।’

আলোকিত প্রতিদিন/১৬নভেম্বর/আরএইচ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন