নয়াপল্টনে সংঘর্ষের ঘটনায় ৩ মামলা, গ্রেফতার ৫০

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে আসামি করে তিনটি মামলা করেছে পুলিশ। পুলিশের ওপর হামলা ও দুটি গাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনায় পল্টন থানায় মামলা তিনটি দায়ের হয়েছে বলে জানান ওই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান।

এসব মামলায় ৫০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে বুধবার রাতে তিনি গণমাধ্যমকে জানান, গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর, সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে এসব মামলা হয়েছে। মামলাগুলোতে বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসকেও আসামি করা হয়েছে বলেও জানান ওসি।

এর আগে, রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বুধবার সকাল থেকে তৃতীয় দিনের মতো মনোনয়নপত্র বিক্রি শুরু হয়। এসময় মনোনয়ন প্রত্যাশীসহ নেতাকর্মীরা মিছিল ও শোভাযাত্রা নিয়ে কার্যালয়ের সামনে আসতে থাকলে পুলিশ নিষেধ করে। কিন্তু নির্দেশনা উপেক্ষা করে তারা এসব কর্মকাণ্ড করার চেষ্টা করলে দুপুরে বিএনপি নেতাকর্মীদের উপর টিয়ারশেল ও লাঠিচার্জ করে পুলিশ। পরে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হলে পুলিশের গাড়িতে ভাঙচুর করে আগুন দেয় বিএনপির নেতাকর্মীরা। এই সংঘর্ষে পুলিশের ৮ সদস্য ও বিএনপির বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হন বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে পুলিশের মতিঝিল বিভাগের ডিসি মো. আনোয়ার হোসেন জানান, বিনা উস্কানিতে হামলা চালিয়ে পুলিশের ৮ সদস্যকে গুরুত্বর আহত করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। একই সঙ্গে নেতাকর্মীরা পুলিশের দুইটি গাড়িতে ভাঙচুর করে আগুন দিয়েছে।

এদিকে, নয়াপল্টনে সংঘর্ষের জন্য বিএনপিকে দায়ী করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ভিডিও দেখে পুলিশের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করে গ্রেফতার করা হবে।

তবে নয়াপল্টনে হামলার জন্য ছাত্রলীগকে দায়ী করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, নয়াপল্টনে শান্তিপূর্ণ মিছিলে ছাত্রলীগ কর্মীরা হেলমেট পরে হামলা করেছে।

 

আলোকিত প্রতিদিন/১৫ নভেম্বর/আরএ

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন