প্রতিমা বিসর্জনে শেষ হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

উৎসবমুখর পরিবেশে প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হলো হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় আয়োজন শারদীয় দুর্গোৎসব। শুক্রবার বিকেল চারটা থেকে বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে ওয়াইজঘাটের বিনা স্মৃতি স্নানঘাটে ঢাকা মহানগর পূজা কমিটির নেতৃত্বে প্রতিমা বিসর্জনের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। প্রতিমা বিসর্জনের কেন্দ্রীয় শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ।

বিজয়া দশমীর সকালে মণ্ডপে মণ্ডপে সিঁদুর খেলার মধ্য দিয়ে দেবী দুর্গার দর্পণ বিসর্জন দেয়া হয়। হিন্দু নারীরা দেবীর প্রতিমায় সিঁদুর পরিয়ে দিয়ে নিজেরাও একে অন্যকে সিঁদুর পরান। এরপরই বেজে ওঠে বিষাদের সুর।

বিসর্জনের উদ্দেশ্যে ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানে করে রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দিও মেলাঙ্গন থেকে কেন্দ্রীয় বিজয়া শোভাযাত্রা বের হয়ে প্রতিমা পলাশীর মোড়ে আসে। কেন্দ্রীয় বিজয়া শোভাযাত্রায় যোগ দিতে ঢাকার বিভিন্ন মন্দির ও পূজামণ্ডপ থেকে শোভাযাত্রাগুলো পলাশী মোড়ে এসে জড়ো হয়। এরপর গান-ঢাকের তালে তালে নাচতে থাকেন সবাই। বেলা তিনটায় শোভাযাত্রা সদরঘাটের উদ্দেশে রওনা হয়।

প্রতিমা বহনকারী ট্রাকগুলো বিকেল চারটার মধ্যেই সদরঘাটে এসে জমা হয়। এরপর ট্রাক থেকে একে একে ঘাটে নিয়ে যাওয়া হয় প্রতিমা। প্রতিমা বিসর্জনের ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী চারদিকে জল ছিটিয়ে এবং আরও কিছু নিয়ম মেনে কাঁধে করে প্রতিমা নৌকায় তোলা হয়। নৌকায় করে প্রতিমা মাঝ নদীতে নিয়ে গিয়ে বিসর্জন দেয়া হয়।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের তথ্যমতে, এবার সারাদেশে ৩১ হাজার ২৭২টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঢাকা মহানগরীর ২৩৪টি মণ্ডপের মধ্যে ৯টি ছিল সবচেয়ে বড় মণ্ডপ। এগুলো হলো- ঢাকেশ্বরী মন্দির, রামকৃষ্ণ মঠ, কলাবাগান পূজামণ্ডপ, বনানীর মণ্ডপ, সিদ্ধেশ্বরী কালীমন্দির, রমনা কালীমন্দির, উত্তরা সার্বজনীন পূজামণ্ডপ, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট সনাতন সমাজকল্যাণ সংঘ ও বসুন্ধরা সার্বজনীন পূজামণ্ডপ।

আলোকিত প্রতিদিন/১৯ অক্টোবর/আরএইচ 

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন