দেড় লাখ ইভিএম কেনার প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে

নানা মহলের তীব্র আপত্তির মুখে জাতীয় নির্বাচনে ব্যবহারের জন্য দেড় লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার প্রস্তাবে অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।যার ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা।

মঙ্গলবার শেরে বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেকের বৈঠকে এ প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন একনেক চেয়ারপারসন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, নির্বাচন কমিশন দেড় লাখ ইভিএম কেনার পরিকল্পনা অনুমোদনের জন্য একনেকে প্রস্তাব পাঠায়। তাদের দেয়া প্রস্তাব আজকের একনেক সভায় অনুমোদন দেয়া হয়।

এ প্রকল্পে প্রস্তাবিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ হাজার ৮২৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। শুধু দেড় লাখ ইভিএম, সিস্টেম এবং সংশ্লিষ্ট যন্ত্রপাতি কেনার জন্য ৩ হাজার ৫১৫ কোটি ৬১ লাখ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। ফলে প্রতি ইউনিট ইভিএমের দাম পড়ছে প্রায় দুই লাখ টাকা।প্রকল্পের বাস্তবায়ন মেয়াদ ধরা হয়েছে চলতি সময় থেকে জুন ২০২৩ সাল পর্যন্ত।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, ইভিএমসহ সভায় মোট ১৪টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়। এতে মোট ব্যয় হবে ১২ হাজার ৫৪৪ কোটি ৯৪ লাখ টাকা।

ইভিএম সম্পর্কে তিনি বলেন, নির্বাচন ব্যবস্থায় অধিকতর স্বচ্ছতা আনতে ইভিএম কেনা, সংরক্ষণ ও ব্যবহার’ শীর্ষক প্রকল্পটি সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে বাস্তবায়ন হবে।প্রকল্পটির আওতায় দেশব্যাপী বিভিন্ন নির্বাচনে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণের লক্ষ্যে ক্রমান্বয়ে ১ লাখ ৫০ হাজার ইভিএম মেশিন কেনা, সংরক্ষণ ও ব্যবহার করা হবে। এছাড়া নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব জনবলের জন্য ইভিএম ব্যবহার সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় দক্ষতা বাড়াতে প্রশিক্ষণ আয়োজন, ইভিএমের মাধ্যমে ভোট দেওয়ার জন্য ভোটারদের জন্য সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হবে।

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর একনেক বৈঠকের পর পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জানিয়েছিলেন জাতীয় নির্বাচনে ১০০ আসনে ইভিএম ব্যবহারে নির্বাচন কমিশনের প্রকল্পটি আজকের একনেক সভায় তোলা হবে।ওই সময় তিনি বলেছিলেন, ইভিএমের জন্য যেসব টাকা অনুমোদন দেয়া হবে তা একসঙ্গে দেয়া হবে না। এসব টাকা ফেইজ আকারে দেয়া হবে।

অালোকিত প্রতিদিন/১৮ সেপ্টেম্বর/এমএস

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন