উৎসুক জনতা লইয়া আমরা কী করিবো? ।। সুলতানা জাকিয়া

সুলতানা জাকিয়া :

আজ অনলাইনে নিউজ পড়তে পড়তে ‘হঠাৎ কেন এখন এতো ডিভোর্স হচ্ছে’ এই বিষয়ে শিরোনাম পেলাম। ভেতরে ঢুকে মূল নিউজটা পড়লাম। শেষের দিকে তাহসান-মিথিলার ডিভোর্সটা এক্সাম্পল হিসেবে টেনেছে। কেন এরকম একটা মডেল কাপোলেরর ডিভোর্স হলো? ওদের ডিভোর্স এর খবরটা প্রায় এক সপ্তাহের পুরনো। তার পরেও এখনো সমান গুরুত্ব সহকারে সব জায়গায় ব্যাপারটা আলোচিত হচ্ছে। এর কারন কি ওরা শুধুমাত্র সেলিব্রেটি বলে? ওদের এই ঘটনায় শুধী সমাজের টনক নড়েছে, তারা এখন ভাবছে এতো ডিভোর্সের কারন কী! একটু খোঁজ নিলেই দেখা যাবে সমাজে এরকম অনেক বিবাহ বিচ্ছেদ প্রায়ই হচ্ছে। সেগুলো নিয়ে কে ভাবছে?

এখন দেশের যা অবস্থা সে তুলনায় এরকম একটা ট্রিভিয়াল ম্যাটার নিয়ে এতোটা টেনস্ড মানুষদের নিয়ে আসলেই টেনশন হচ্ছে। বন্যায় দেশের অনেক জায়গায় জেরবার অবস্থা, পুলিশী সংঘর্ষে চোখ হারানো, পাহাড় ধ্বসে জনজীবন বিপর্যস্ত, মসজিদুল আকসার সমস্যা এরকম আরও অনেক দেশী- বিদেশী ইম্পোর্ট্যান্ট ইস্যু থাকার পরেও টেনশন করার মতো বিষয় খুঁজে পায়? খুঁজে পায় না! শুনছি তারা নাকি একজোড়া আদর্শ দম্পতি ছিলেন, তাই এরকম একটা ঘটনায় সবাই অবাক। বুঝলাম না, দেশে আর কি মডেল কাপোল নেই নাকি! একটা সন্তান হয়ে যাওয়ার পরও ডিভোর্স হওয়াটা থেকে বোঝা যায় তাদের মেন্টাল বন্ডিং কতোটা জোরালো ছিল। একটা ঘটনা ঘটে গেছে, নিসঃন্দেহে সংসার ভাঙা এটা খুব খারাপ ব্যাপার। এক্ষেত্রে সবার সমবেদনা থাকাটা খুব স্বাবাভাবিক। তাই বলে সবার ঘুম হারাম হওয়ার মতো কিছু নয় যেখানে দেশে ভাববার মতো আরও অনেক গ্রেট বিষয় রয়েছে।

একবার এক ফান ম্যাগাজিনের কাভার পেজে একটা ছবি দেখেছিলাম যে- ঢাকার একটা নামী শপিং কমপ্লেক্সে আগুন লাগায় উৎসুক জনতা দেখার জন্য এতোটাই ভীড় করেছিল যে উদ্ধার কর্মীরা ঘটনা স্থলে যেতেই পারছিল না। আর ছবির ক্যাপশন ছিল- ‘এই উৎসুক জনতা লইয়া আমরা কী করিব?’ সত্যিই মনে হয় এই উৎসুক জনতা লইয়া কী করিবো? এতো আগ্রহ কি সমস্যার সমাধান করতে পারবে? যাই হোক, তাহসান-মিথিলার ডিভোর্স রহস্য উদঘাটন করতে গিয়ে এই উৎসুক জনতা যদি পুরো সমাজের অগনিত বিবাহ বিচ্ছেদের কারন উদঘাটন করতে পারে তাহলে তো ভালোই। কোনো চেষ্টাকে ছোটো করে দেখতে নেই।

ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *