লক্ষিপুরে অপহৃত শিশু উদ্ধার – আলোকিত প্রতিদিন

লক্ষিপুরে অপহৃত শিশু উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক: ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত দেড় বছরের শিশু মিনহাজ উদ্ধার হয়েছে। সোমবার দুপুরে একটি বাগানের মধ্যে শিশুর খোঁজ পায় স্থানীয় লোকজন। তাকে সদর হাসপাতালে চিকিৎস্যা দেওয়া হচ্ছে। রোববার দিবাগত রাতে সদর উপজেলার লাহারকান্দি ইউনিয়নের লাহারকান্দি গ্রামের স্থানীয় এলাহী বক্সের বাড়ীর নিজ ঘর থেকে নিখোঁজ হয় শিশু মিনহাজ। সকালে মুঠোফোনে তার বাবার কাছ থেকে মুক্তিপণ দাবি করে অজ্ঞাতরা।

শিশুটির মা কহিনুর বেগম জানান, সোমবার ভোর থেকে পুলিশ, এলাকাবাসী ও অত্মীয়-স্বজন তার সন্তানের খোঁজ শুরু করেন। দুপুরের দিকে তাদের এক আত্মীয়ের মাধ্যমে জানতে পারেন বাড়ির অদূরে একটি বাগানে এক শিশুপুত্র পাওয়া গেছে। তিনি জানান, বাগানের পার্শবর্তী এক মহিলা শিশুটিকে দেখে তাদের ঘরে নিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে তাকে সদর হসপাতালে নিয়ে আসা হয়। অজ্ঞাতরা শিশু মিনহাজের মুখে কসটেপ লাগিয়ে বাগানে ফেলে রাখেন বলে জানান তিনি।

লক্ষিপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আনোয়ার হোসেন জানান, দুপুর পৌনে তিনটার দিকে শিশু মিনহাজকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানের শিশুটি সুস্থ আছে।সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওদন্ত) মো. মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ‘অপহৃত শিশু মিনহাজ উদ্ধার হয়েছে। ঘটনাটি তদন্তাধীন রয়েছে। শিশুটির পরিবার ও স্থানীয় লোকজন জানান, প্রতিদিনের মতো শিশু মিনহাজকে নিয়ে রাজমেস্ত্রী মামুন ও তার স্ত্রী কহিনুর ঘরের দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে পড়েন।

ভোর রাতে ঘুম ভাঙ্গলে মা-বাবা দেখেন তাদের শিশুটি পাশে নেই। এসময় তাদের ব্যবহৃত মুঠোফোনটিও পাওয়া যায়নি। তাদের দো-চালা টিনসেড ঘরের দরজাটিও খোলা দেখতে পান তারা। শিশুটির পরিবার চতুর্দিকে খোঁজ-খবর নিয়ে তার সন্ধান পায়নি। ভোর ৫টার দিকে ওই মুঠোফোনে শিশুর বাবা অন্য আরেকটি মোবাইল নাম্বার থেকে কল দিলে অপরপ্রান্ত থেকে শিশুটিকে ছেড়ে দিতে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে অজ্ঞাতরা। খবর পেয়ে সোমবার সকালে ওই বাড়িতে যান জেলা পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-সার্কেল) আনোয়ার হোসেন, সদর থানার ওসি আজিজুর রহমান মিয়া, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মুশু।

আলোকিত প্রতিদিন/আগস্ট/০৫/এসএম

এই সংবাদ ১১৫ বার পঠিত।
ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন