নায়ক জসিমের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ | আলোকিত প্রতিদিন

নায়ক জসিমের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

Spread the love
বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়ক জসিম, আজ এই প্রখ্যাত অভিনেতার ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী। পুরো নাম আবদুল খায়ের জসিম উদ্দিন। ১৯৯৮ সালের ৮ অক্টোবর মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে গেছেন। ঢালিউডের প্রথম অ্যাকশন হিরোর খেতাবটা অনেকে তাকেই দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন।
জসিম শুধু অভিনেতাই ছিলেন না, ছিলেন প্রযোজক, ফাইট ডিরেক্টর ও মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধজয়ের এক সফল নায়ক। মেজর হায়দারের নেতৃত্বে দুই নম্বর সেক্টরে রণাঙ্গনে অংশ নিয়ে বিজয় নিয়ে ফিরে আসেন তিনি। এরপর নেমে পড়েন জীবনযুদ্ধে।
১৯৭৩ সালে দেওয়ান নজরুল পরিচালিত ‘দোস্ত দুশমন’ সিনেমায় জসিম অভিনয় জীবন শুরু করেন। হিন্দি ‘শোলে’ ছবির রিমেকে তিনি ‘গাব্বার সিং’ চরিত্রে কাজ করে ব্যাপক আলোচিত হন। ঢালিউডে খলনায়ক হিসেবে দীর্ঘদিন একক রাজত্ব করেন জসিম। ঢালিউড সিনেমায় তিনিই নতুন ধারার ফাইটিং চালু করেন। খলনায়ক হিসেবে তার অভিনীত সিনেমার মধ্যে রয়েছে রংবাজ, রাজ দুলারী, দোস্ত দুশমন, তুফান, জবাব, নাগ নাগিনী, বদলা, বারুদ, সুন্দরী, কসাই, লালু মাস্তান, নবাবজাদা, অভিযান, কালিয়া, বাংলার নায়ক, গরিবের ওস্তাদ, ভাইবোন, মেয়েরাও মানুষ।
খলনায়ক থেকে নায়কে পরিণত হওয়া জসিম সময়ের পরিক্রমায় নিজেকে জনপ্রিয় হিরোদের কাতারে নিয়ে যান। দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর পরিচালনায় ‘সবুজ সাথী’ সিনেমায় নতুন করে পর্দায় আবির্ভাব ঘটে তার। যেসব সিনেমায় নায়ক হিসেবে দেখা গেছে, তার মধ্যে রয়েছে পরিবার, রাজা বাবু, বুকের ধন, স্বামী কেন আসামি, লাল গোলাপ, দাগী, টাইগার, হাবিলদার প্রভৃতি । সব মিলিয়ে জসিম অভিনীত সিনেমার সংখ্যা দুইশতাধিক। আ
১৯৫০ সালের ১৪ আগস্ট ঢাকার কেরানীগঞ্জের বক্সনগর গ্রামে জসিম জন্মগ্রহণ করেন। বিএ পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন । জসিমের স্ত্রী ছিলেন নায়িকা সুচরিতা। পরে তিনি নায়িকা পূর্ণিমা সেনগুপ্তার মেয়ে নাসরিনকে বিয়ে করেন। অসময়ে চলে নায়ক জসিমের সম্মানার্থে শিল্পী সমিতি আজ তার জন্য দোয়ার ব্যবস্থা করছে।
সুত্র: ইত্তেফাক/আলোকিত প্রতিদিন/৮অক্টোবর/আরএইচ
এই সংবাদ ৩১৩ বার পঠিত।
ফেসবুক থেকে মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *